আইপিএল শুরুর আগে হুঙ্কার আন্দ্রে রাসেলের, জবাব দিতে চান সমালোচকদের

ব্যাট হাতে বা হাত ঘুরিয়ে যে কোনও সময়ে ম্যাচের রং বদলে দিতে পারেন আন্দ্রে রাসেল। এখনও তিনি টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বিপজ্জনক ক্রিকেটার। কিন্তু গত দুই মরসুমে ক্যারিবিয়ান দৈত্যকে জ্বলে উঠতে দেখা যায়নি। কিন্তু কলকাতা নাইট রাইডার্স  শিবির তাঁর উপরে আস্থা রেখেছে। আর সেই কারণেই ক্যারিবিয়ান তারকা চান কিছু ফিরিয়ে দিতে।

কলকাতা নাইট শিবিরে পা রেখেই ভক্তদের আশ্বাস দিয়ে রাসেলকে বলতে শোনা গিয়েছে, দ্রে রাস এসে গিয়েছে। আর কোনও চিন্তা নেই। অনুশীলনেও নেমে পড়েছেন তিনি। অবলীলায় ছক্কা হাঁকাচ্ছেন। খেলা চলাকালীন প্রতিপক্ষের বোলিং এভাবেই ধ্বংস করেন রাসেল। এবারের আইপিএলেও তাঁর ব্যাট চলবে বলেই মনে করছেন ভক্তরা। যখনই দরকার তখনই হাত ঘুরিয়ে উইকেট তুলে নেবেন বা ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ ধরবেন। সবসময়েই কিছু না কিছু করতে দেখা যায় রাসেলকে।

সেই রাসেল মেগা টুর্নামেন্টের বল গড়ানোর আগেই স্থির করে ফেলেছেন, এবারের মরসুমে তিনি দলকে কিছু ফিরিয়ে দিতে চান। রাসেল বলেন, ”হৃদয়ে এই ব্যাজ নিয়ে আবার ফিরে আসায় আমি গর্বিত। গত কয়েক মরসুমে আমাকে নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। অনেক চর্চা হয়েছে। কিন্তু সেই সব সমালোচকদের চুপ করানোর জন্য আমি কেবল পারফর্ম করতে পারি। উদারতা নিয়ে নেতিবাচক মনোভাব দূর করতে হবে। মাঠে নেমে যে কাজটা আমি সবচেয়ে ভাল করতে পারি, সেটাই করার চেষ্টা করতে হবে। ব্যাটিং, বোলিং বা দুরন্ত ক্যাচ ধরে নিজের অবদান রাখতে চাই ম্যাচে।” রাসেলের এই বার্তাকে অনেকেই হুঙ্কার বলে মনে করছেন।

এদিকে, আইপিএলের পঞ্চদশ সংস্করণের আগে কলকাতা নাইট রাইডার্সে যেন বদলের ছোঁয়া। মেগা নিলামে দলের খোলনলচে বদলে একেবারে নতুন করে শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নাইট শিবির। আগের মরশুমে ব্যর্থ হওয়া সিনিয়রদের বিদায় দিয়ে এবার দলে আনা হয়েছে নতুন তারকাদের। নতুনত্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এই মরশুমের জার্সিতেও অভিনবত্বের ছোঁয়া রাখল কেকেআর। শুক্রবার দোলের দিনই নতুন মরশুমের জাসি প্রকাশ্যে আনল কলকাতা নাইট রাইডার্স। নাইটদের জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন খোদ অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ার। জার্সির মূল রং আগের মতোই বেগুনিই থাকছে। তবে এবারে আগের তুলনায় নীলচে আভা বেশি। অন্যদিকে আগেরবারের লম্বা সোনালি স্ট্রিপ এবার আর থাকছে না। তার বদলে হাত এবং কোমরের কাছে থাকছে সোনালি গোল স্ট্রিপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 6 =