সামান্য বচসার জেরে মাথায় বাঁশ দিয়ে আঘাতের অভিযোগ, চুঁচুড়ায় যুবকের মৃত্যু

চুঁচুড়া: সামান্য বচসার জেরে মাথায় বাঁশ দিয়ে আঘাতের অভিযোগ। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতের মৃত্যু। ঘটনার পর থেকে ফেরার অভিযুক্ত। ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা চুঁচুড়া মোগলটুলিতে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত সোমবার ১৮ মার্চ বিকালে মোগলটুলিতে সাইকেল নিয়ে যাওয়ার সময় পড়ে যান বছর চুয়াল্লিশের অমল খান। পড়ে গিয়েই মদ্যপ অবস্থায় গালি দিতে থাকেন। আর তা নিয়েই মাজিদ আনসারির সঙ্গে বচসা হয় অমলের। আর তা থেকে হাতাহাতি। অমল ও মাজিদ পরস্পরের আত্মীয়। অভিযোগ, বচসা চলাকালীনই বাঁশ দিয়ে অমলের মাথায় আঘাত করেন মাজিদ। রক্তাক্ত অবস্থায় বেশ কিছুক্ষণ রাস্তার ধারে পড়ে থাকেন অমল। তারপর রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে ইমামবাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পর মাজিদের ওপর ক্ষেপে ওঠেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অভিযুক্তের বাড়িতে ভাঙচুর চলে। আহতের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ইমামবাড়া হাসপাতালের আইসিইউ-তে চিকিৎসা চলছিল। শনিবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত্যুর খবরে উত্তেজনা ছড়ায়।

ঘটনার পর শনিবার সকালেই ইমামবাড়া হাসপাতালের সামনে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান পরিবারের সদস্যরা। চুঁচুড়া থানার আইসি রামেশ্বর ওঝা বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলে অবরোধ সরিয়ে দেন। মৃতের স্ত্রী মৌসুমী বিবি বলেন, ঘটনার দিন আমাকে ফোন করে ডাকা হয়। হাসপাতালে গিয়ে দেখি মাথায় দশটা সেলাই পড়েছে, স্বামীর জ্ঞান নেই। কী হল ওকে বাঁচাতে পারলাম না। নেশা করত বলে আমার সঙ্গে অশান্তি হত। আমি বলেছিলাম শুধরে যাও। গত পাঁচ মাস আমি স্বামীর ঘরে ছিলাম না, মা বোনের বাড়ি থাকতাম। আমাকে বলত বাড়িতে চলে আসো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *