চুক্তি মতো বর্ধিত মজুরি না পেয়ে গৌরীশঙ্কর জুটমিলে শ্রমিক বিক্ষোভ

ত্রিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী বর্ধিত মজুরির দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ গারুলিয়া পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের শ্রী গৌরীশঙ্কর জুটমিলে। বিক্ষোভের জেরে শুক্রবার সকালে উত্তেজনা ছড়ায় জুটমিল চত্বরে। ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কিছুক্ষন ব্যস্ততম ঘোষপাড়া রোড অবরোধ করে বিক্ষোভও দেখান। খবর পেয়ে নোয়াপাড়ার পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের হটিয়ে দেয়।
জানা গিয়েছে, চলতি বছরের তিন জানুয়ারি জুটমিল শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি নিয়ে ত্রিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তি মোতাবেক গত ৩ ফ্রেবুয়ারি থেকে সমস্ত জুটমিল শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির কথা। কিন্তু মিল কর্তৃপক্ষ এদিন নোটিস দিয়ে জানায়, ত্রিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী বর্ধিত মজুরি আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি ‘হপ্তা’র সঙ্গে তারা যুক্ত করতে পারেননি। প্রসঙ্গত, ১৫ দিন অন্তর জুটমিলে শ্রমিকদের মজুরি দেওয়া হয়, যাঁকে হপ্তা বলা হয়। মিল কর্তৃপক্ষ জানান, বর্ধিত মজুরি পরবর্তী পাক্ষিক ‘হপ্তা’র সঙ্গে তারা যুক্ত করে দেবেন। এই নোটিস দেখেই ক্ষিপ্ত হয়ে শ্রমিকরা কাজ বন্ধ রেখে মিলের ভেতরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। মিল গেটের সামনে তারা কিছুক্ষন রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভও দেখান। উত্তেজনার খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন স্থানীয় কাউন্সিলর পঙ্কজ দাস। তিনি বলেন, ‘শ্রমিকদের বিক্ষোভ একশো শতাংশ ন্যায় সঙ্গত। কারণ, ত্রিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী এই মিলের শ্রমিকদের মজুরি এখনও বাড়ানো হয়নি।’ আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বর্ধিত মজুরি-সহ হপ্তা প্রদান না করা হলে শ্রমিকরা ফের আন্দোলনে সামিল হবেন বলে এদিন জানান শাসকদলের স্থানীয় কাউন্সিলর। এদিকে, এদিন দুপুরে মিল কর্তৃপক্ষ নোটিস দিয়ে জানিয়ে দেয় ২৫ ফেব্রুয়ারি হপ্তা প্রদানের পরিবর্তে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি বর্ধিত মজুরি-সহ তারা হপ্তা দেবেন। তা জানার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *