টি-২০ বিশ্বকাপে কি খেলবেন না মহম্মদ শামি ?

তেইশের বিশ্বকাপে আগুনে ফর্মে ছিলেন মহম্মদ সামি। একের পর এক স্পেল উপহার দিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপে ৭ ম্যাচে ২৪ উইকেট নিয়ে কামাল করেছেন সামি। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৭ উইকেট নেন। নতুন বছরে অপেক্ষা করছে টি-২০ বিশ্বকাপ। শোনা যাচ্ছে তাতে ভরসাযোগ্য এই পেসারকে নাও খেলাতে পারে ভারত। বিসিসিআই সূত্রে এমনটাই খবর। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পরও কেন বিশ্বকাপে খেলানো হবে না সামিকে?

তেইশের বিশ্বকাপ সাক্ষী ছিল সামি ম্যাজিকের। তবে সেই সামিকেই আগামী টি-২০ বিশ্বকাপে নাও খেলানো হতে পারে। সামির বয়স, ফিটনেস, ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্ট এই বিষয়গুলি মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে বোর্ড। হয়তো সামিকে দলে রাখা হবে। কিন্তু একাদশে অটোমেটিক চয়েজ হবেন না। একমাত্র খুব প্রয়োজন হলে তবেই দেখা যেতে সামিকে। সামির যা বয়স তাতে তিন ফরম্যাটে তাঁকে খেলাতে চাইছে না ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। একজন পেসারের পক্ষে তিন ফরম্যাটে নিয়মিত খেলা কষ্টকর। পিটিআই সূত্রে খবর, সামির গোড়ালিতে চোট রয়েছে। যা দীর্ঘমেয়াদী সমস্যা তৈরি করতে পারে। যদিও পরবর্তী ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টেস্ট স্কোয়াডে রয়েছেন সামি।

সামির চোট কতটা গুরুতর এই বিষয়ে বিসিসিআইয়ে দাবি যদিও ভিন্ন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বোর্ড কর্তা জানিয়েছেন, “সামি ফিট না থাকলে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের দলে রাখা হত না।” সামির ফিটনেস নিয়ে তৈরি হয়েছে দ্বি-মত। আসন্ন ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে সামির উপস্থিতিই নিশ্চিত করবে সবটা। আগামীতে কীভাবে সামিকে ব্যবহার করে ভারত, তা দেখার আশায় মুখিয়ে রয়েছেন সামি ভক্তরা।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সামিকে দেখা যাবে কিনা, তা নির্ভর করতে পারে আগামী আইপিএলেও। লাল-বলে সামির দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার জায়গা নেই। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সামি কতটা কার্যকর হয়ে উঠতে পারেন, আইপিএল থেকেই হয়তো আভাস নিতে চাইবেন নির্বাচকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *