হোস্টেল সুপারের অমানবিক অত্যাচারের অভিযোগ তুলে পলাতক দুই নাবালক

হোস্টেল সুপার এবং এক কর্মীর বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগ তুলল পলাতক দুই নাবালক পড়ুয়া। যদিও ওই হোমে থাকা দুই নাবালক পড়ুয়া পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেও মাঝ রাস্তা থেকে তাদের গভীর রাতে উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে, পুরাতন মালদা থানার সাহাপুর চাইল্ড ওয়েলফেয়ার হোমে।

পুলিশ জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া দুই নাবালক পড়ুয়ার নাম দেবনাথ  মুর্মু (১৪) এবং রথীন হাঁসদা (১৬)।  এদের বাড়ি যাত্রাডাঙা এলাকায়। দীর্ঘদিন ধরে এরা সাহাপুর এলাকার ওই হোমে থেকে লেখাপড়া করে। দেবনাথ মুর্মু অষ্টম শ্রেণিতে পাঠরত এবং রথীন হাঁসদা নবম শ্রেণিতে পাঠরত।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই দুই নাবালক ছাত্র কাঁধে বইয়ের ব্যাগ নিয়ে সাহাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সেতুমোড় হয়ে বাইপাস রোডের দিকে যাচ্ছিল। রাতে পুলিশ টহলদারি সময় দুই নাবালক পড়ুয়াকে দেখে সন্দেহ হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে আসল তথ্য সামনে আসে। শুক্রবার উদ্ধার হওয়া ওই দুই পড়ুয়াকে আদালতের মাধ্যমে তাদের বাড়িতে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে পুলিশ।

এদিকে ওই দুই নাবালক পড়ুয়ার অভিযোগ, তাদের প্রতি অমানবিক আচরণ করা হয়। হোমের সুপার এবং এক কর্মী তাদেরকে মারধর করে। মাঝেমধ্যে অত্যাচার চালানো হয়। আর সেই অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হোমের পাঁচিল টপকে তারা বাড়ি পালানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু মাঝপথে পুলিশ তাদেরকে ধরে ফেলে।

পুরাতন মালদা থানার আইসি হীরক বিশ্বাস জানিয়েছেন, রাতে টহলদারি পুলিশের ভ্যান সাহাপুরের একটি হোমের দুই নাবালক পড়ুয়াকে উদ্ধার করেছে। আপাতত আদালতের নির্দেশ নিয়ে ওই দুই পড়ুয়াকে তাদের বাড়িতে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে হোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগের কথা প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়েছেন আইসি। এমনকী ওই হোম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে কোনো প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × four =