জমি সংক্রান্ত বিবাদে কুপিয়ে খুন তৃণমূল কর্মীকে, অভিযোগের তীর কংগ্রেসের দিকে

নদিয়া: জমি সংক্রান্ত বিবাদে কুপিয়ে খুন এক তৃণমূল কর্মীকে। মৃত ব্যক্তির নাম সাকিব মণ্ডল। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে নদিয়ার থানারপাড়া থানা এলাকার মোক্তারপুর গ্রামে। বাড়ির কাছেই রক্তাক্ত জখম অবস্থায় আহত সাকিবকে উদ্ধার করে স্থানীয় নতিডাঙা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করে। ঘটনার পর এখনো পর্যন্ত মোট তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃত তিনজনের নাম টারজান মণ্ডল, একরামুল মণ্ডল, শাজাহান মণ্ডল। মৃত সাকিব এলাকায় তৃণমূল কর্মী হিসেবে পরিচিত। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ওই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় নির্দল সিপিআইএম এবং কংগ্রেস মিলে বোর্ড গঠন করে। পঞ্চায়েত নির্বাচনের পরেও বিরোধীদের হাতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিল সাকিব।

ঘটনার পর স্থানীয় থানায় অভিযোগ হয়েছিল বেশ কয়েকজন কংগ্রেস কর্মীর নামে। থানায় অভিযোগ হওয়ার পর সাকিবের বাবা সাইদুল মণ্ডলকে অভিযোগ তুলে দিতে বারংবার চাপ সৃষ্টি করেছিল এলাকার কংগ্রেস কর্মীরা। যদিও চাপের কাছে নত শিকার করেনি সাইদুল মণ্ডল। সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি বলে মনে করছে মৃত সাকিবের পরিবার। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরিয়ে রাস্তায় যাওয়ার সময় সাকিবকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি কোপায়। বাড়ি থেকে প্রায় ৪০০ মিটার পর্যন্ত রাস্তায় রক্ত পড়েছিল। আর তা থেকেই পরিবারের অনুমান তাকে রাস্তায় কোপাতে কোপাতে নিয়ে এসেছিল । যদিও এই ঘটনায় কোনও রাজনৈতিক রং নেই বলেই জানিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় অভিযোগের তীর উঠেছে কংগ্রেসের দিকে। এ বিষয়ে তৃণমূল নেতা তথা পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি মিঠু শেখ বলেন, তৃণমূল কর্মী সাকিব খান খুনে অভিযুক্তরা প্রত্যেকেই কংগ্রেস কর্মী হিসেবে পরিচিত।

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে থেকেই এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছিল তারা এমনকি তৃণমূল কর্মীকেও মারধর করার অভিযোগ রয়েছে স্থানীয় থানার পাড়া থানায়। এই ঘটনার সঙ্গে প্রত্যক্ষ হবে তাই কংগ্রেস বলেই দাবি করেন মিঠু শেখ। যদিও ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে কংগ্রেস। নদিয়া জেলা কংগ্রেস মুখপাত্র শিলভী সাহা বলেন, এর সঙ্গে কোনও রাজনৈতিক যোগ নেই। শুধু শুধু কংগ্রেসের নামে অপপ্রচার করার চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। সামনে যেহেতু লোকসভা নির্বাচন তাই বাজার গরম করতে চাইছে তৃণমূল। এটা সম্পূর্ণ ওদের দলীয় কোন্দলে খুন। যদিও ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে তিনজন কংগ্রেস কর্মীকে বিনা কারণে গ্রেপ্তার করেছে বলে অভিযোগ করেন কংগ্রেসের মুখপাত্র। যদিও সাকিব মণ্ডলের স্ত্রী মারুফা বিবি জানান, আমার স্বামী তৃণমূল কংগ্রেস করতে বলে ওরা কংগ্রেসে যাওয়ার জন্য প্রায়ই চাপ দিত। আমার স্বামী তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যেতে চাইত না আর তাই কংগ্রেসর রাই আমার স্বামীকে খুন করেছে। ঠিক কি কারণে খুন তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 + twenty =