মর্মান্তিক, তামিলনাড়ুর ধর্মীয় শোভাযাত্রায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত দুই শিশু-সহ ১১

হিন্দুদের ধর্মীয় শোভাযাত্রায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ১১ জনের। গুরুতর আহত হয়েছেন ১৫ জন। ঘটনায় ইতিমধ্যেই দায়ের হয়েছে এফআইআর। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন।মৃতদের পরিবারের জন্য ৫ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্যও ঘোষণা করা হয়েছে।

বুধবার ভোররাতে তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) থাঞ্জাভুর জেলার এক মন্দির থেকে রথযাত্রা বের হয়েছিল। শয়ে শয়ে ভক্ত যোগ দিয়েছিলেন সেই ধর্মীয় শোভাযাত্রায়। সেখানেই ঘটে যায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, রথের উপর যাঁরা দাঁড়িয়েছিলেন, তাঁরা হাইভোল্টেজ তারের সংস্পর্শে আসতেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এক পুলিশ আধিকারিকের কথায়, ‘রথকে ঘিরে মানুষের ঢল নামায় তা বাঁক নিতে খানিকটা সমস্যায় পড়েছিল। তখনই ওভারহেডের তার রথটিকে স্পর্শ করে। আর সেই সময় যাঁরা তার উপরে ছিলেন, তাঁরা বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। মৃত ১১ জনের মধ্যে দু’জন শিশুও ছিল বলে জানা গিয়েছে। আহত ১৫ জনকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁরা আপাতত চিকিৎসাধীন।’

পুলিশের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক বলছেন, সাধারণত এই ধরনের শোভাযাত্রা থাকলে কোনওরকম দুর্ঘটনা এড়াতে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রাখা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে রথটি উচ্চতাও খুব বেশি ছিল না। অর্থাৎ আপাত দৃষ্টিতে দেখলে, ওভারহেডের তার রথকে স্পর্শ করার কথা নয়। সেই কারণেই বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করা হয়নি। তবে তাকে এমনভাবে সাজানো হয়েছিল যে তার উচ্চতা অনেকটা বেড়ে গিয়েছিল। আর তাতেই ঘটে দুর্ঘটনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen + ten =