ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে স্বাক্ষরিত বাণিজ্য চুক্তি, ‘ঐতিহাসিক মুহুর্ত’ বলে আখ্যা মোদির

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে নতুন বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষরিত হল ভারতের। ভারতের বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল (Piyush Goyal) ও অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী ড্যান তেহানের মধ্যে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। নতুন এই চুক্তিকে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ বলে বর্ণনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি (PM Modi)। পাশাপাশি পীযূষের আশা, এই চুক্তির ফলে ১০ লক্ষ চাকরির সুযোগ তৈরি হবে। এবং রাতারাতি দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিনিয়োগ একলাফে বেড়ে যাবে অনেকটাই। নতুন চুক্তি নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীও। তিনি জানিয়েছেন, ‘এই চুক্তি বিশ্বের দ্রুততম বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির দরজা খুলে দেবে অস্ট্রেলিয়ার কৃষক ও উৎপাদক ও অন্যদের জন্য।’

শনিবার একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে দুই দেশের বাণিজ্যমন্ত্রীদের পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) ও অস্ট্রেলিয়ার (Australia) প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন উপস্থিত ছিলেন। সেখানেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এপ্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত। এই চুক্তির ফলে আমরা ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের স্থিতাবস্থায় অবদান রাখতে পারব। পাশাপাশি পারস্পরিক সহায়তার জায়গাটিকে আরও মজবুত করা সম্ভব হবে।’ তাঁর মতে পড়ুয়া, পেশাদার ও পর্যটকদের ক্ষেত্রে পারস্পরিক বিনিময়ের পথটিও আরও সুগম হল এই নয়া চুক্তিতে।

প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেছেন, এত অল্প সময়ের মধ্যে এত গুরুত্বপূর্ণ চুক্তিতে সম্মত হওয়া থেকেই বোঝা যাচ্ছে দুই দেশের মধ্যে কতটা পারস্পরিক আস্থা রয়েছে। এটি সত্যিই আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেছেন, ভারত-অস্ট্রেলিয়ার এই সম্পর্ক বন্ধুত্বের স্তম্ভ। এই চুক্তি উভয় দেশের পড়ুয়া, পেশাদার এবং পর্যটকদের মধ্যে আদান-প্রদান সহজতর করবে। যার ফলে এই সম্পর্ক আরও মজবুত হবে। মোদির কথায়, আমাদের অর্থব্যবস্থায় একে-অপরের চাহিদা পূরণের জন্য প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে, এই চুক্তির মাধ্যমে আমরা এই সুযোগগুলির পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে সক্ষম হব। এই চুক্তির ভিত্তিতে আমরা একসঙ্গে সাপ্লাই চেইনের স্থিতিস্থাপকতা বাড়াতে পারব এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের স্থিতিশীলতায়ও অবদান রাখতে পারব। এই চুক্তি স্বাক্ষর আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের জন্য সত্যিই একটি সন্ধিক্ষণ মুহূর্ত।

ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে স্বাক্ষরিত হওয়া ঐতিহাসিক অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও বাণিজ্যিক চুক্তি সম্পর্কে অস্ট্রেলিয়ায় প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেছেন, এটি ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়ান সরকারের একক বৃহত্তম বিনিয়োগ, তবে এখানেই শেষ নয়। ভারত-অস্ট্রেলিয়া চুক্তি স্বাক্ষর আমাদের অর্থনৈতিক সম্পর্কের অঙ্গীকারকে আরও বিকশিত করবে।

একইভাবে উচ্ছ্বসিত পীযূষ গোয়েলও। তাঁর কথায়, ‘আমার আশা করছি আগামী ৪-৫ বছরের মধ্যেই দেশে ১০ লক্ষ চাকরির সুযোগ বাড়বে। ভারতীয় শেফ ও যোগ প্রশিক্ষকদের জন্য নতুন নতুন সুযোগ তৈরি হবে।’ এই চুক্তির ফলে বিনিয়োগ দ্বিগুণ হয়ে যাবে বলেও আশা তাঁর। ২৭ বিলিয়নের পরিবর্তে এবার ৪৫-৫০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের স্বপ্ন দেখছেন তিনি। পাশাপাশি শিক্ষা, প্রযুক্তি ও অন্যান্য ক্ষেত্রের লাভবান হওয়ার বিষয়েও আশা ব্যক্ত করেছেন পীযূষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen − 9 =