দেশবাসীকে রাম নবমীর শুভেচ্ছা জানিয়ে ধরিত্রী মাতাকে বাঁচাতে কৃষকদের পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

রবিবার রাম নবমী উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা জানিয়ে সকলের জন্য সুখ, শান্তি এবং সমৃদ্ধি কামনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। এদিন টুইটারে প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেছেন, ‘দেশের মানুষকে রাম নবমীর শুভেচ্ছা। ভগবান শ্রী রামের কৃপায় সকলের জীবনে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি আসুক। জয় শ্রী রাম!’ ভগবান রামের জন্ম উপলক্ষে প্রতি বছর চৈত্র নবরাত্রির শেষ দিনে সারা ভারতে রাম নবমী পালিত হয়।

মোদি গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন ২০০৮ সালে তিনি মন্দিরটি উদ্বোধন করেছিলেন। তাঁর পরামর্শের ভিত্তিতে মন্দির ট্রাস্ট অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল রোগীদের জন্য বিনামূল্যে ছানি অপারেশন এবং আয়ুর্বেদিক ওষুধের জন্য বিভিন্ন সামাজিক ও স্বাস্থ্য-সম্পর্কিত বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করছে।

রবিবার  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাম নবমী উপলক্ষ্যে গুজরাতের জুনাগড়ের (Junagarh) গাথিলায় উমিয়া মাতা মন্দিরের ১৪ তম প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে ভাষণ দিচ্ছিলেন। উমিয়া মাকে কাদওয়া পতিদারদের কুলদেবী বলে মনে করে। তিনি বলেন, ‘উমিয়া মাতার আশীর্বাদে আমরা গুজরাতের উন্নয়নে নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবং জনগণের অংশগ্রহণে এর সাফল্যে অবদান রাখছি।’

প্রকৃতি সংরক্ষণের দিকে দেশবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে গিয়ে বলেন, ‘কৃষকদের প্রাকৃতিক চাষাবাদ অবলম্বন করা উচিত এবং মা ধরিত্রীকে বাঁচানো উচিত, নয়তো একদিন কৃষি উৎপাদন বন্ধ করে দেবে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমি গুজরাতের প্রতিটি কৃষককে রাসায়নিক চাষ থেকে প্রাকৃতিক চাষে বদল করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা যদি আমাদের মাটির ক্ষতি করা বন্ধ না করি, তাহলে আমাদের বীজের গুণাগুণ নির্বিশেষে মা ধরিত্রী আর কোনো ফলন দেবে না।’

গুজরাতের মাটি থেকে জল সংরক্ষণের প্রচারাভিযানের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জল সংগ্রহ এবং সামাজিক গবেষণা করা হচ্ছে।’ বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, জল সংরক্ষণ অভিযানে যেন কোনো উদাসীনতা না থাকে। স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তিতে প্রতিটি জেলায় ৭৫টি লেক নির্মাণের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × five =