গড়িয়ার ফ্ল্যাটে বাবা, মা ও ছেলের ঝুলন্ত দেহ, মৃত্যুর নেপথ্যে কী!

ফোনে সাড়া মিলছিল না। উদ্বেগ নিয়েই খোঁজ করতে এসেছিলেন আত্মীয়। কিন্তু বারবার ডাকাডাকিতেও খোলেনি ফ্ল্যাটের দরজা। উল্টে নাকে আসে বাজে গন্ধ।
কেন আসছে দুর্গন্ধ? তারই উৎস সন্ধানে বেরিয়ে এল হাড়হিম করা ঘটনা। গড়িয়া স্টেশনের কাছে আবাসনের একটি ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হল বাবা, মা ও ছেলের ঝুলন্ত দেহ। বুধবার স্থানীয় বাসি¨াদের থেকে দুর্গন্ধের খবর পেয়ে পুলিশ এসে ফ্ল্যাটের দরজা ভাঙে। তারপরই উদ্ধার হয় তিন জনের ঝুলন্ত দেহ। মৃতরা হলেন, স্বপন মৈত্র (৭৮), অপর্ণা মৈত্র(৬৮) এবং দম্পতির ছেলে সুমনরাজ মৈত্র।
প্রতিবেশীরা জানান,  স্বপনবাবু পেশায় ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। প্রবীণ দম্পতি সেভাবে কারও সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন না। তবে তাঁদের ছেলে সকলের সঙ্গে কথাবার্তা বলতেন। গত ২৮ ডিসেম্বর শেষবার দেখা গিয়েছিল তাঁদের। বার বার ফোন করেও ওই পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে মহিলার ভাই বুধবার সকালে গড়িয়ার ফ্ল্যাটে আসেন। দরজা বন্ধ আর দুর্গন্ধ পেয়ে স¨েহ হয়। খবর দেওয়া হয় থানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকে। তিন জনের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, তিন জনের দেহ আলাদা আলাদা ঘরে ছিল। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান, গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন তাঁরা। তবে কী কারণে আত্মহত্যা করলেন তাঁরা, তা স্পষ্ট নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *