প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা হাওড়ার ডাঁসপাড়াতে। অভিযোগের তীর সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে

হাওড়া : বৃহস্পতিবার, দিন কয়েক আগের তর্কাতর্কির জেরে প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা ঘটে। রড, লাঠি ও তলোয়ার নিয়ে প্রাণঘাতী হামলা চালায় দুষ্কৃতিরা। সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে এলাকারই এক বাসিন্দার বাড়িতে ঢুকে মারধর করার অভিযোগ উঠলো। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটে হাওড়ার ডোমজুড় থানার অন্তর্গত ডাঁসপাড়া এলাকায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা চরমে ওঠে। গ্রামের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে হয় মারামারি। এদিনের এই হামলার ঘটনায় জখম হন বেশ কয়েকজন। মারমারির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী।

গ্রামবাসীরা পুলিশকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখায়। ঘটনায় যুক্ত অপরাধীদের গ্রেফতারের দাবি জানায় গ্রামবাসীরা। ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হন এসিপি (দক্ষিণ) সহ ডোমজুড় থানার পুলিশ আধিকারিকরা। গোটা ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিবেশ ও চাপা আতঙ্ক রয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা জায়, হামলাকারীরা সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতী। বাম জমানাতে এরা মানুষের উপর বহু অত্যাচার করেছে। এখনও কিছু লোকের মদতে তারা সুযোগ পেলেই এই ধরণের হামলা চালায় বলে অভিযোগ।

ওই গ্রামেরই বাসিন্দা ওয়াজেদ ও তার ছেলে আব্দুল এই ঘটনায় যুক্ত রয়েছে বলে গ্রামবাসীদের অভিযোগ। গ্রামবাসীদের আরও অভিযোগ, এদেরকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেলেও ফের ছেড়ে দেয়। স্থানীয় বাসিন্দা শেখ হাজীব আলী অভিযোগ করে বলেন, ওয়াজেদ সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতী। এর নামে ডোমজুড় থানায় বহু মামলা রয়েছে। এরা বাম আমলে এভাবেই অত্যাচার করতো। এখনো কিছু লোকের মদতে সেই কাজ করে যাচ্ছে। পরিকল্পনা করে হত্যার জন্যই এই হামলা হয়েছিল বলে দাবি করেন হাফিজ। তিনি আরও বলেন, অবিলম্বে এদেরকে গ্রেফতার করে ন্যায্য বিচার করতে হবে এটাই তাদের দাবি। হামলায় ওই পরিবারের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহত পরিবারের পক্ষ থেকে ডোমজুড় থানার লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে। তদন্ত শুরু করেছে ডোমজুড় থানার পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 4 =