ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ ঝুলন-স্মৃতিদের

ওয়েলিংটন: প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দাপুটে জয়। দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে হার। তৃতীয় ম্যাচে আবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দুরন্ত জয়। বিশ্বকাপে ধারবাহিকতাই টিম ইন্ডিয়ার প্রথম চ্যালেঞ্জ। বেশি ভাবনা ব্যাটিং নিয়ে। বুধবার সকালে নিউজিল্যান্ডে গতবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ও রানার্সরা মুখোমুখি। ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের দৌড়ে ভালো জায়গায় চলে যাবে মিতালির টিম ইন্ডিয়া। অন্যদিকে এখনও একটা ম্যাচ না জেতা ইংল্যান্ড কাল হারলে বিশ্বকাপের দৌড় থেকে কার্যত ছিটকে যাবে। হেদার নাইটের দলের কাছে ম্যাচটা ডু অর ডাই। গ্রুপ পর্বে তিন ম্যাচে চার পয়েন্ট ভারতের। কাল ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলেন চার ম্যাচে ছয় পয়েন্ট থাকবে স্মৃতিদের খাতায়। গ্রুপ পর্বে এখনও অস্ট্রলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার কঠিন চ্যালেঞ্জ পার করা বাকি। তাই ইংল্যান্ড ম্যাচটা ভারতীয় মেয়েদের কাছে বিশ্বকাপে বড় ফ্যাক্টর হতে পারে।

স্লো ব্যাটিং সব থেকে বড় মাথা ব্যথা টিম ইন্ডিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে স্মৃতি মান্ধানা ও হরমনপ্রীত কউর সেঞ্চুরি করে ফর্মে ফিরেছেন। কিন্তু মিতালি ছন্দে নেই। বাংলার রিচা ঘোষ দুরন্ত উইকেট কিপিং করলেও ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারছেন না। ১৮ বছরের রিচার ব্যাট চাপের সামনে ভেঙে পরছে। দীপ্তি শর্মা ব্যাট হাতে এখনও সফল হতে পারেননি এবারের বিশ্বকাপে। দলের আরেক ওপেনার ইসতিকা শুরু থেকেই চালিয়ে খেলছেন। টিম ম্যানেজমেন্টের তেমনই নির্দেশ তাঁর জন্য। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৬২ টি ডট বল খেলেছিলেন ভারতের মেয়েরা। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কোনও ভাবেই সেটা চায় না রমেশ পাওয়ারের দল।

ব্যাটিং নিয়ে একাধিক প্রশ্ন থাকলেও দলের বোলিং ছন্দে আছে। ঝুলন গোস্বামী হোক বা মেঘনা সিং উইকেট পাচ্ছেন। তবে রান কম খরচ করে উইকেট তুলে দলকে অনেক বেশি ভরসা দিচ্ছেন স্পিনার রেজশ্বরী গায়কোয়াড় ও স্নেহ রানা। টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। সাতটি উইকেট আছে তাঁর দখলে। ৫টি উইকেট নিয়েছেন স্নেহ রানা। অল রাউন্ডার হিসেবে সফল পূজা বস্ত্রকার।

২০১৭ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে অল্পের জন্য হারতে হয়েছিল ভারতকে। মাঝে অনেক ম্যাচ হয়েছে দুই দলের। কিন্তু বিশ্বকাপের বদলা বিশ্বকাপের মঞ্চে নেওয়ার আনন্দই আলাদা। কাল ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলে তাদের কার্যত বিশ্বকাপের বাইরের রাস্তা দেখিয়ে দেবে ভারত। সেটাই হতে পারে ২০১৭ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালের মধুর প্রতিশোধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + 20 =