চিরায়ত রীতিতে আজও তত্ত্ব আদান-প্রদানে প্রেমের উদযাপন বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্টেলের ছাত্রছাত্রীদের

নিজস্ব প্রতিবেদন, পূর্ব বর্ধমান: বসন্ত এসে গেছে…।
ফুল ফুটুক না ফুটুক বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলাপবাগ ক্যাম্পাসে রঙিন বসন্ত। বৃহস্পতিবার যেন বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে পালিত হল ভ্যালেন্টাইন ডে।
সত্তরের দশকে বর্ধমানের গোলাপবাগ ক্যাম্পাসে চালু হয়েছিল তত্ত্ব দেওয়ার রীতি। প্রথা মেনে সরস্বতী পুজোর পরের দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক পড়ুয়ারা তত্ত্বের ডালি সাজিয়ে বাজনা বাজিয়ে একে অপরের সঙ্গে সৌহার্দ্য বিনিময় করতেন। সেই প্রথা চলে আসছে বছরের পর বছর। এবারও অন্যথা হয়নি সেই নিয়মের। সেই প্রথা মেনে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে এবছরও সরস্বতী পুজোর পরের দিন তত্ত্বের ডালি আদান প্রদান করলেন আবাসিকরা। এই তত্ত্বের ডালি আদান-প্রদানের মাধ্যমে চলে বন্ধুত্বের নিবিড় বন্ধন গড়ে তোলা। অনেকেই এদিন নিজের পছন্দের মানুষকে জানিয়ে দেন মনের কথা।
সকাল থেকেই গার্গী, নিবেদিতা, সরোজিনী, মিরাবাঈয়ের আবাসিক ছাত্রীরা বিয়ের মতো গায়ে হলুদের সাজে তত্ত্বের ডালা সাজিয়ে রঙ বেরঙের শাড়ি পরে হাজির হয়েছিলেন অরবিন্দ, নেতাজি, চিত্তরঞ্জন, বিবেকানন্দ ও রবীন্দ্র ছাত্রাবাসে। একই ভাবে ছেলেদের ছাত্রাবাস থেকে উপহারের ডালি সাজিয়ে বাদ্যযন্ত্র সহকারে ছাত্ররা আসেন ছাত্রীদের আবাসনে।
বিয়ের মতো সাজানো তত্ত্বের ডালিতে থাকে নানা উপহার। নতুন জামাকাপড় থেকে কসমেটিক্স, চকলেট, বিভিন্ন রকমের মিষ্টি ও সন্দেশ, সব কিছুই হাজির থাকে এই উপহারের ডালিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *