হাতের কাজে পরিবারের এবং ৬০০ মহিলার কর্মসংস্থান বাষট্টির মঞ্জুদেবীর

নিজস্ব প্রতিবেদন, বর্ধমান: ইচ্ছে থাকলেই উপায় হয়, এর উদাহরণ পূর্ব বর্ধমান জেলার কালনা পুরসভার বারুইপাড়ার নিবাসী মঞ্জু দেবী। পড়াশোনা করার ইচ্ছা থাকলেও সেটা হয়তো করাহয়ে ওঠেনি। তবে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে স্বনির্ভর হওয়ার ইচ্ছেটা পূরণ করেছেন। শুধু নিজে নন, বহু মহিলাকে স্বর্নিভর করে তোলার পাশাপাশি আজ তিনি অনেকের পথ চলার অনুপ্রেরণাও বটে।
ছোটবেলায় তাঁর বাবা তাঁকে পড়াশোনা করাতে পারেননি। সেই থেকেই তাঁর ইচ্ছা ছিল বড় হয়ে নিজে কিছু করে দেখাবেন। মঞ্জু দেবীর মনের জেদ, ইচ্ছাশক্তি ও চেষ্টাকে তিনি ব্যর্থ হতে দেননি। সংসার সামলে তিনি তাঁর কর্মের পথে অবিচল রয়েছেন এখনও। তাঁর হাতের তৈরি ঠাকুরের মালা, বিয়ের টোপর, ঠাকুরের চাঁদমালা, ঠাকুরের সাজ বিভিন্ন জায়গায় তিনি পৌঁছে দিয়েছেন, তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন মহিলারা ঘরে বাইরে সব জায়গাতেই নিপুণ ভাবে কাজ করতে পারেন।
বিয়ের ৪০ বছর পরও নিপুণ হাতে ঠাকুরের মালা, সাজ ও বিয়ের টোপর বানিয়ে নিজের পরিবারের এবং ৬০০ জন মহিলার অন্নসংস্থান করে চলেছেন ৬২ বছর বয়সেও। মঞ্জু দেবী প্রমাণ করে দিয়েছেন বয়স কোনও বাধা নয় ইচ্ছা থাকলেই স্বনির্ভর হওয়া যায়। আজ নিজের পরিচয়ে তিনি পরিচিত। বর্তমানে তাঁর এই কাজে দুই ছেলেকেও নিযুক্ত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *