সিএএ চালু হতেই অসমে শুরু বিক্ষোভ, রাজ্যজুড়ে হরতালের ডাক

লোকসভা ভোটের আগেই দেশজুড়ে চালু হয়েছে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন । সোমবার সন্ধ্যায় কেন্দ্র বিজ্ঞপ্তি জারি করতেই বিক্ষোভ শুরু হয়েছে অসমে। মঙ্গলবার রাজ্যজুড়ে হরতালের ডাক দিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। সোমবার বিকেলে সিএএ কার্যকর হওয়ার ঘোষণা হতেই অসমের নানা এলাকায় শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। গুয়াহাটির কটন বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে পোড়ানো হয় সিএএর কপি। বাঁশের ব্যারিকেড তৈরি রাখা হয়েছে গোটা শহর জুড়ে। সোমবার থেকেই বিধানসভা ও জনতা ভবনের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। তবে সিএএ-র প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলো। তবে সেই সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সেরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

অন্যদিকে, অসমের ১৬টি বিরোধী দলের জোট ইউওএফএ সাফ জানিয়েছিল, সিএএ কার্যকর হওয়ার পরদিন থেকেই রাজ্যজুড়ে বন্ধ-হরতাল শুরু হবে। ঘেরাও করা হবে জনতা ভবন। এহেন পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে বিশেষ নোটিস জারি করেছে গুয়াহাটি পুলিশ। সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রেল বা জাতীয় সড়কে কোনও ব্যক্তি বা সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন কার্যকর হওয়াকে অসমের ইতিহাসে কালো দিন বলে অভিহিত করেছেন অসম জাতীয় পরিষদের প্রেসিডেন্ট লুরিনজ্যোতি গগৈ। তাঁর কথায়, সর্বানন্দ সোনোওয়াল এবং হিমন্ত বিশ্বশর্মা- রাজ্যের দুই মুখ্যমন্ত্রী দিল্লির কাছে ভিক্ষা চেয়েছেন আর তার পরে এই আইনে সমর্থন করেছেন। অসমের ভূমিপুত্রদের বিরুদ্ধে তাঁরা যে অন্যায় করেছেন, সেই জন্য চিরকাল অসম তাঁদের ভিলেন হিসাবেই মনে রাখবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 + 16 =