চিনের শিনজিয়াং প্রদেশের লপ নুরে চলছে পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি

পরমাণু বোমা ফাটাতে চলেছে চিন! অত্যাধুনিক আণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা করতে চলেছে পড়শি দেশটি! সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসা উপগ্রহ চিত্র থেকে মিলছে এমন ইঙ্গিতই। এই খবর প্রকাশ্যে আসতে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে বিশ্বে।

আন্তর্জাতিক সংবাদপত্রে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন মোতাবেক, চিনের শিনজিয়াং প্রদেশের লপ নুরে পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। একাধিক উপগ্রহ চিত্রে লালফৌজের সেই তৎপরতা ধরা পড়েছে। ছবিতে দেখা যাচ্ছে হঠাৎ করেই লপ নুরে বিরাট বিরাট যন্ত্রের আমদানি করা হয়েছে। ওই অঞ্চলে তৈরি করা হয়েছে বিশাল সেনাঘাঁটি। বিশ্লেষকদের মতে, আণবিক অস্ত্রের পরীক্ষার জন্য তৈরি হচ্ছে বেজিং। মনে করা হচ্ছে, চিন পুরোদমে পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে। নয়তো রাসায়নিক বিস্ফোরকের মাধ্যমে পরমাণু বিস্ফোরণের চেষ্টা করছে।
ধারণা করা হচ্ছে, বেশকিছু ব্যালিস্টিক এবং জাহাজ থেকে ছোড়ার মতো পরমাণু অস্ত্র তৈরি করছে চিন। এবার সেগুলো পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে। লপ নুরের পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষাগারের উপগ্রহ চিত্র নিয়ে বছরের পর বছর ধরে গবেষণা করে চলেছেন রেনি বাবিয়ার্জ। তিনি অতীতে পেন্টাগনের হয়ে কাজ করেছেন। সেই রেনিই এ বার লপ নুরের সক্রিয় হয়ে ওঠার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ১৯৬৪ সালের ১৬ অক্টোবর প্রথম বার এই লুপ নুরে পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করেছিল চিন।

উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে সানফ্রান্সিসকোতে বৈঠকে বসেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এ নিয়ে দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, পরমাণু অস্ত্রে রাশ টানা নিয়ে আলোচনা হয় দুই রাষ্ট্রপ্রধানের। তবে মুখে যাই বলুক না কেন, চিন যে চিনেই আছে তা ফের একবার স্পষ্ট হয়ে গেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *