রানা-রিঙ্কুর দুরন্ত জুটিতে ৫ ম্যাচ পর ফের জয়ের মুখ দেখলো কেকেআর

তাকে নিয়ে অনেক মজার কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখা হয়েছে। ছোট করে দেখানোর চেষ্টা হয়। কিন্তু রিঙ্কু সিং দেখাচ্ছেন তাকে নিয়ে ইয়ার্কি করার জায়গা নেই। রাজস্থান রয়্যালসকে হারিয়ে অবশেষে জয়ের রাস্তায় ফিরল কলকাতা নাইট রাইডার্স। শ্রেয়স আয়ারের দল সোমবার জিতল ৭ উইকেটে। টিকে থাকল প্লে-অফের আশাও। অনবদ্য খেললেন রিঙ্কু সিং। পাঁচে নেমে নীতীশ রানার সঙ্গে জুটি বেধে দলকে জিতিয়ে দিলেন তিনি।

ডু অর ডাই। ঠিক এমন পরিস্থিতিতেই লিগ তালিকার তিন নম্বরে থাকা রাজস্থানের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছিলেন শ্রেয়স আইয়াররা। প্রথম একাদশ নিয়েও ধন্দে ছিল নাইট শিবির। সেই জায়গা থেকে রাজস্থানকে তুলনামূলক অল্প রানে বেঁধে ফেলে তৃপ্তির জয় পেলে কিং খানের কলকাতা। টানা ছয় ম্যাচের হারের লজ্জা থেকে রক্ষা পেলেন শ্রেয়স। আর সেই সঙ্গে জিইয়ে রইল প্লে অফে যাওয়ার আশাও।

চলতি আইপিএলে রাজস্থানের পারফরম্যান্স বেশ ঈর্ষণীয়। সঞ্জু স্যামসনের নেতৃত্বে কঠিন পরিস্থিতি থেকেও খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে রাজস্থান। সেখানে সোমবার তাঁদের সামনে ছিল এমন একটা দল, যারা গত পাঁচটি ম্যাচ পরপর হেরেছে। ফলে খাতায় কলমে পাল্লা ভারী ছিল গোলাপি জার্সিধারীদেরই। কিন্তু টি-টোয়েন্টিতে, বিশেষ করে আইপিএলে যেন কোনও হিসেব-নিকেশই কাজ করে না। ঘা খাওয়া বাঘের মতোই এদিন গর্জে উঠে মূল্যবান দুটি পয়েন্ট পকেটে পুরে ফেলল কেকেআর।

রিঙ্কু সিংকে প্রথম একাদশে রাখা নিয়ে ইতিমধ্যেই অনেকে ভ্রু কুঁচকেছেন। কিন্তু এদিন দুরন্ত ফিল্ডিং এবং ভরসাযোগ্য ব্যাটিং করে তিনি বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, কেন তিনি কেকেআর কর্তাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছেন। ৪২ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। তবে তাঁর আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সঙ্গী নীতীশ রানা। যিনি শেষমেশ ৪৮ নটআউট রইলেন। দুই ওপেনার বালা ইন্দ্রজিৎ (১৫) ও অ্যারন ফিঞ্চ (৪) ব্যর্থ হলে প্রথমে অধিনায়ক শ্রেয়স (৩৪) ও পরে রিঙ্কুর সঙ্গে জুটি বেঁধে দলকে কাঙ্ক্ষিত জয় এনে দিলেন রানা। লাগাতার ব্যর্থতার জেরে এদিন ভেঙ্কটেশ আইয়ারকে ছাড়াই প্রথম একাদশ সাজিয়েছিল কেকেআর। তবে শ্রেয়সের আউট নিয়ে আম্পায়ারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রাজস্থান সমর্থকরা। কীভাবে ওই ডেলিভারি ওয়াইড দেখালেন আম্পায়ার, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

এই ম্যাচ জেতায় ১০ ম্যাচে আপাতত কেকেআরের সংগ্রহ ৮ পয়েন্ট। উলটো দিকে হাফ সেঞ্চুরি করেও দলকে না জেতাতে পারার যন্ত্রণা নিয়েই এদিন হোটেলে ফিরতে হল সঞ্জুকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + 19 =