মরণোত্তর ভারতরত্ন পাচ্ছেন কর্পূরী ঠাকুর

মরণোত্তর ভারতরত্ন পুরস্কার পেলেন বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী প্রয়াত কর্পূরী ঠাকুর। মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতি ভবনের তরফে এ কথা ঘোষণা করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় কর্পূরী ঠাকুরের কথা তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১৯৮৮ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি প্রয়াত হয়েছেন কর্পূরী ঠাকুর। মৃত্যুর ৩৫ বছর পর এই সম্মান পেলেন বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী তাঁকে জননায়ক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। দুবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি। তাঁর সময়কালে দরিদ্র মানুষের উন্নয়নে অনেক কাজ হয়েছিল বলে জানা যায়।

১৯৭০ থেকে ১৯৭১ সাল ও ১৯৭৭ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তৎকালীন জনতা দলের এই নেতা। ব্রিটিশ ভারতে বিহারের সমস্তিপুরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ছাত্রাবস্থা থেকেই বিভিন্ন আন্দোলনে অংশ নিতেন কর্পূরী ঠাকুর। পরবর্তীতে রাজনীতিতে যোগ দেন সক্রিয়ভাবে।

জানা যায়, পিছিয়ে পড়া শ্রেণির জন্য সরকারি চাকরিকে সংরক্ষণ তিনিই প্রথম শুরু করেছিলেন। এছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলে একাধিক স্কুল তৈরি হয়েছিল তাঁর আমলে, যা আজও তাঁর নামেই পরিচিত। তিনি বিহারে মদ নিষিদ্ধ করেছিলেন তাঁর আমলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *