গভীর রাতে মেয়েদের হস্টেলে, জাতীয় ক্যাম্প থেকে বহিষ্কৃত বাংলার ভারত্তোলক

বছর দুয়েক আগে বার্মিংহ্যাম কমনওয়েলথ গেমসে বাংলার মুখ উজ্জ্বল করেছিলেন ভারত্তোলক। ক্রমশ তাঁর পরিচিতি বাড়ছিল। নানা প্রতিযোগিতা জিতছিলেন। প্যারিস অলিম্পিকের দৌড়েও রয়েছেন বাংলার কৃতি ক্রীড়াবিদ। হঠাৎই অস্বস্তি তৈরি বাংলা এবং দেশের ক্রীড়া মহলে। গভীর রাতে মেয়েদের হস্টেলে ঢুকে পড়ায় জাতীয় শিবির থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বাংলার ভারত্তোলক অচিন্ত্য শিউলিকে।

ক্রীড়াবিদদের কেরিয়ারে সবচেয়ে জরুরি শৃঙ্খলা। আর তা ভাঙলে বড়রকমের সমস্যায় পড়তে হবে, এ বিষয়ে সন্দেহ নেই। ২০২২ বার্মিংহ্যাম কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জিতেছিলেন বাংলার অ্যাথলিট অচিন্ত্য। এরপর আরও নানা পদক জিতলেও পাখির চোখ অলিম্পিক। এ বছর প্যারিস অলিম্পিক। তারই প্রস্তুতি শিবির চলছে। এনআইএস পাতিয়ালায় শিবিরে ছিলেন বাংলার ভারত্তোলক অচিন্ত্য শিউলিও। আপাতত তিনি চিন্তায়।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের খবর অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তিনি মেয়েদের হস্টেলে ঢুকে পড়েন। নিরাপত্তাকর্মীরা তাঁকে ধরে ফেলেন। নিরাপত্তারক্ষীরা তাঁর ভিডিয়ো বানিয়ে রেখেছিলেন। সর্বভারতীয় ভারত্তোলক সংস্থার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্তা সংবাদসংস্থা পিটিআইকে বলেন, ‘এরকম উশৃঙ্খলা কখনোই বরদাস্ত করা হবে না। ওকে ক্য়াম্প থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

স্পোর্টস অথরিটি অব ইন্ডিয়া এবং এনআইএস পাতিয়ালার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর বিনীত কুমারকে দ্রুতই বিষয়টি জানানো হয়। অচিন্ত্যর এই ঘটনার ভিডিয়ো থাকায় কোনও রকম তদন্তই হয়নি। সেই ভিডিয়ো পাঠানো হয় বিনীত কুমারকে। এরই ভিত্তিতে অচিন্ত্য শিউলিকে বহিষ্কার করা হয়েছে। পাতিয়ালায় পুরুষ ও মহিলা অ্যাথলিটদের জন্য ভিন্ন হস্টেল রয়েছে। অলিম্পিকের জন্য শিবিরে অনেক অ্যাথলিটই রয়েছেন। প্রথম বার কাউকে এমন শাস্তি দেওয়া হল তা নয়। এর আগে শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য শিবির থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল জেরেমি লালরিননুনগাকে।

অচিন্ত্য শিউলির এই ঘটনার ফলে তাঁর অলিম্পিকের স্বপ্ন কার্যত বিশবাঁও জলে। এ মাসেই ফুকেটে অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জন প্রতিযোগিতা রয়েছে। অচিন্ত্য সুযোগ পাচ্ছেন না। ফলে প্যারিসের রাস্তাও বন্ধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *