খুঁটি পুজোর মাধ্যমে আরামবাগে আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের সূচনা

উৎসব মুখর বাঙালি। ডিসেম্বর মাস থেকেই উৎসবে সামিল রাজ্যবাসী। হুগলি জেলায় আরামবাগ উৎসব চলাকালীন আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের কাউন্টডাউন শুরু। ১ জানুয়ারি খুঁটি পুজোর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের শুভ সূচনা হল। জানা গেছে, ২৪ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের উদ্বোধন হবে এবং এই পরব মেলা চলবে ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত। লোকসভা ভোটের আগে রাজনৈতিক বিভাজন ভুলে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আরামবাগে আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের শুভ সূচনা করল একটি অরাজনৈতিক সংগঠন। এই আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের খুঁটি পুজোতে সমাজের শিল্পপতি থেকে শুরু করে বহু বিশিষ্টজনের উপস্থিত লক্ষ্য করা যায়।

বিভিন্ন জায়গার প্রায় শতাধিক জন বাউলশিল্পীকে নিয়েই এই অনুষ্ঠান হবে। আন্তর্জাতিক স্তরের বাউল শিল্পীরা এই আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবে অংশ নেবেন বলে জানা গিয়েছে। বাংলাদেশ থেকে শুরু করে জাপান ও ভারতবর্ষের নামী বাউল শিল্পীরা এই পরবে অংশ নেবেন। আরামবাগ শহর সংলগ্ন তেঘরী বসন্তপুরে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। অস্থির সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিবেশের মাঝে মানব সেবাকে সামনে রেখে মানুষ হওয়ার বার্তা দেওয়াই এই উৎসবের মূল উদ্দেশ্য। মূলত, প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরের শান্তিনিকেতনকে আরামবাগে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন আয়োজকরা। আয়োজকদের দাবি, হোগলা পাতার ছাউনিতে ছাওয়া বাউল আখড়া থেকে শুরু করে শান্তিনিকেতনের সোনাঝুরির হস্তশিল্পের পসরা দেখা যাবে। এই বিষয়ে হুগলি জেলার অন্যতম বিশিষ্ট শিল্পপতি তথা আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরবের সম্পাদক শান্তনু রায় জানান, আমাদের দেশের বাউল ফকির ও আন্তর্জাতিক স্তরের বাউল শিল্পীরা এই পরবে অংশ নেবেন।

শান্তিনিকেতনের খোয়াই হাটের অনুকরণে হস্ত শিল্পের ভাণ্ডার থাকবে।অপরদিকে এই বিষয়ে আন্তর্জাতিক গোঁসাই পরব কমিটির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য শ্রীদীপ চ্যাটার্জী বলেন, এবারে ভারতবর্ষ ছাড়াও জাপান, বাংলাদেশের পাশাপাশি অন্ততপক্ষে আরও ৪টি দেশ থেকে পরবে অংশগ্রহণ করবেন গুণিজনেরা। বাংলার হারিয়ে যাওয়া নকশি কাঁথার মাঠ ও পিঠে পুলির স্টলও থাকবে এই উৎসবে। বিশিষ্ট বাউল গুরু অনন্ত দাস বাউলের হাত ধরে এদিন খুঁটি স্থাপন হয় বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *