ভারতের প্রথম পুরুলিয়ার অযোধ্যায় মাশরুম বিপণি ও জলখাবারের দোকান

নিজস্ব প্রতিবেদন, পুরুলিয়া: ভারতের প্রথম পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড়ে শুরু হল মাশরুম বিপণি। শনিবার অযোধ্যা পাহাড়ের হইলটপের পলাশ ব্লসম এস্টেটে শুভ উদ্বোধন হয় মাশরুম বিপণি ও জলখাবারের দোকান।
জানা যায়, এখানে মাশরুম চাষ দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। মাশরুম বিশেষজ্ঞরা মাশরুম উৎপাদনের সঙ্গে এলাকার উদ্যানপালন অনুষ্ঠানে বা কৃষি প্রশিক্ষণ শিবিরে গিয়ে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন মহিলা থেকে পুরুষ সকলকেই। উৎপাদনের পাশাপাশি এবার নতুন করে শুরু করল মাশরুম বিপণি ও জলখাবারের দোকান। এই দোকান থেকে মিলবে আচার, স্ন্যাক্স, সিঙ্গারা, চপ, পাকোড়া সহ নানান মুখরোচক জল খাবার।
পলাশ ব্লসম এস্টেটের কর্ণধার সুজন কুমার পন্ডিত বলেন, ‘আমাদের এখানে এই চাষে স্থানীয় উদ্যানপালনের সহযোগিতা রয়েছে। এই মাশরুম চাষের ভালো লাভের আশা রাখছি। পাহাড়ে বেড়াতে আসা পর্যটকদেরও চাহিদা থাকে মাশরুমের ওপর। তাই এবারে চাহিদা অনেকটাই মিটবে বলে আশা করছি। মাশরুমের যেসব জলখাবার তৈরি হবে সেগুলো ন্যায্য দামে বিক্রি হবে। পাশাপাশি বিভিন্ন প্রান্তে মাশরুম পাঠানো গেলে আর্থিক উন্নতিও হবে।’
পাহাড়ের বিশিষ্ট সমাজসেবী অখিল সিং সর্দার জানান, পর্যটকদের ভীষণ চাহিদা থাকে মাশরুমের ওপর। এবারে পাহাড়েই মিলবে মাশরুম সহ নানান মাশরুমের পদ। এখানে যদি এলাকার ছেলেমেয়ে ও স্থানীয় স্বনির্ভর মহিলা গোষ্ঠীগুলি কাজ পায় তবে পাহাড়ের মানুষের রোজগারের পথটা আরও উন্নত হবে বলে দাবি তাঁর।
এদিন উদ্বোধনে ছিলেন বাঘমুণ্ডি ব্লকের বিডিও আর্য তা, বাঘমুন্ডি থানার ইনচার্জ রজত চৌধুরী, অযোধ্যা বন দপ্তরের রেঞ্জ অফিসার মনোজ মজুমদার, পুরুলিয়া ডেপুটি ডাইরেক্টর অফ হর্টিকালচার কৃষ্ণেন্দু নন্দন, বাঘমুণ্ডি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মল্লিকা চক্রবর্তী, আড়ষা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বিশ্বরূপ মাঝি, পলাশ ব্লসম এস্টেটের কর্ণধার সুজন কুমার পণ্ডিত, আড়ষা ও বাঘমুণ্ডি উদ্যানপালন আধিকারিক শচীনন্দন মাঝি, অযোধ্যা পাহাড়ের বিশিষ্ট সমাজসেবী অখিল সিং সর্দার প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *