স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারে ঘরছাড়া গৃহবধূ, ঠাঁই পেলেন মালদা মেডিক্যাল কলেজে

স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারে ঘরছাড়া গৃহবধূ এখন আশ্রয় নিয়েছে মালদা মেডিক্যাল কলেজে (Malda Medical college)। বেশ কিছুদিন ধরে রাস্তায় ঘুরে বেরিয়ে এবং পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েও কোনও লাভ না হওয়ায় অবশেষে নিজের দুই নাবালিকা কন্যা সন্তান অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণে, তাদের মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করিয়েছেন। আর সেখানে আশ্রয় স্থান হয়ে উঠেছে নির্যাতিতা ওই গৃহবধূর। মেডিক্যাল কলেজে দেওয়া দুবেলা-দুমুঠো খাবার জুটছে ঠিকই। কিন্তু প্রাণনাশের ভয়ে শ্বশুরবাড়ির এলাকায় যেতে পারছেন না। ঘটনাটি ঘটেছে, রতুয়া থানা মহানন্দটোলা গ্রাম পঞ্চায়েতের বধুরামটোলা গ্রামে।

নির্যাতিতা গৃহবধূর নাম তুলসী দেবী (৩৩)। তিনি বলেন, এক লক্ষ টাকা পণ দিতে না পারায় অসুস্থ কন্যা সমেত তাকে মারধর করে ঘর থেকে বের করে দিয়েছে স্বামী, শাশুড়ি ও ননদ। এমনকী, দু’লক্ষ টাকা নিয়ে দ্বিতীয় বিয়েও করে নেয় স্বামী। থানায় একাধিকবার অভিযোগ জানালেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা তো নেয়নি। অগত্যা ১৩ বছরের অসুস্থ কন্যা সন্তানকে নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে হচ্ছে স্ত্রীকে।

নির্যাতিতা ওই গৃহবধূর অভিযোগ, স্বামী সুরেন্দর চৌধুরী, শাশুড়ি সুচি দেবী ও ননদ রাজশ্রী চৌধুরী তার ওপর অমানবিক অত্যাচার করে তাকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ওই গৃহবধূ রতুয়া থানায় পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখার আশ্বাস দিয়েছে রতুয়া থানার পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 + 6 =