আজান বিতর্কে রাজ ঠাকরের বিরুদ্ধে এফআইআর, গোটা রাজ্যে আটক ২৬০ দলীয় সমর্থক

রাজ ঠাকরের হুমকির কারণেই মুম্বই (Mumbai) এবং পার্শ্ববর্তী এলাকার বহু মসজিদে এদিন সকালেও লাউডস্পিকারে আজান (Azan) বাজানো হয়নি। যেহেতু তিনি হুমকি দিয়েছিলেন, লাউডস্পিকারে আজান বাজানো হলেই মসজিদের সামনে পালটা লাউডস্পিকারে হনুমান চালিশা (Hanuman Chalisa) পাঠ করা হবে। এ হেন রাজ ঠাকরের (Raj Thackeray) বিরুদ্ধে অবশেষে এফআইআর (FIR) দায়ের করল মুম্বই পুলিশ।

উল্লেখ্য, রাজের হুমকির পর অশান্তি এড়াতে এদিন মহারাষ্ট্রের পরভানি, ওসমানাবাদ, হিঙ্গোলি, জালনা, ননদেদ, ননদুরবার, সিরদি ও শ্রীরামপুরের মসজিদগুলি লাউডস্পিকার বন্ধ রাখে। কোথাও কোথাও নীচু ভলিউমে লাউডস্পিকারে আজান বাজানো হয়। এদিকে আদালতের নির্দেশ সত্বেও মুম্বইয়ের চারকপ এলাকায় মসজিদের সামনে লাউডস্পিকারে হনুমান চালিশা বাজানোর অভিযোগ উঠেছে মহারাষ্ট্র নব নির্মাণ সেনার কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে। উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে গোটা রাজ্যে ২৬০ জন এমএনসি সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। যদিও সমর্থকদের গ্রেপ্তারির পরেও রাজ জানিয়ে দিয়েছেন, লাউডস্পিকারে আজান বাজানোর বিরুদ্ধে আন্দোলন চলবে।

মঙ্গলবারও নিজের বাসভবনের সামনে দাঁড়িয়ে একই হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মহারাষ্ট্র নব নির্মাণ সেনা (MNC) প্রধান রাজ ঠাকরে। তিনি বলেন, ‘আমি সমস্ত হিন্দুদের কাছে আবেদন করছি, আগামিকাল ৪ মে, আপনি যদি লাউডস্পিকারে আজানের শব্দ শুনতে পান, সেই সব জায়গায় লাউডস্পিকারে হনুমান চালিশা বাজাবেন। তখনই ওরা লাউডস্পিকারের সমস্যা বুঝতে পারবে।’ কার্যত এই হুমকির পরেই রাজের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় এফআইআর দায়ের করে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen + 2 =