অভিষেকের ‘দ্রুততম’ হাফসেঞ্চুরি, একই ম্যাচে সতীর্থর রেকর্ড ভাঙলেন

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের নয়, তবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের রেকর্ড। একই ম্যাচে একজন রেকর্ড তৈরি করলেন, আর একজন ভাঙলেন। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ব্যাটাররা কোন এনার্জি ড্রিঙ্ক নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন, বলা কঠিন! শুরু থেকেই বিধ্বংসী মেজাজে। যে নামছেন, সেই বড় শট খেলছেন। ক্যাপ্টেন হিসেবে হার্দিক পান্ডিয়ার যে আরও অনেক অনেক শেখা বাকি, প্রতি মুহূর্তেই বুঝিয়ে দিলেন সানরাইজার্স ব্যাটাররা। মায়াঙ্ক আগরওয়াল কিছুটা হতাশ হতেই পারেন। তিনি ফেরেন মাত্র ১১ রানে।

টস জিতে ফের রান তাড়ার সিদ্ধান্ত নেন হার্দিক পান্ডিয়া। প্রথম ম্যাচে গুজরাট টাইটান্সের বিরুদ্ধে একই সিদ্ধান্ত নিয়ে ডুবেছিলেন। সেখানে টার্গেট অনেক কম ছিল। আজ তাঁদের সামনে রেকর্ড রান। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারেননি ট্রাভিস হেড। টিমে ফিরেই বিধ্বংসী ইনিংস। মাত্র ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ট্রাভিস হেড। সেই মুহূর্ত অবধি সানরাইজার্সের হয়ে সেটিই ছিল দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি।

শেষ অবধি ২৪ বলে ৬২ রানে ফেরেন বাঁ হাতি ওপেনার ট্রাভিস হেড। যদিও তাঁর দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। তিনে নামেন অভিষেক শর্মা। গত ম্যাচে সেকেন্ড ব্যাটিং করায় ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার নামানো হয়েছিল অভিষেককে। এই ম্যাচে তিনে নেমে হেডের রেকর্ড ভাঙেন। মাত্র ১৬ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন অভিষেক শর্মা। ২৩ বলে ৬৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংস অভিষেকের।

অভিষেক শর্মাকে একটা সময় পরবর্তী যুবরাজ সিং বলা হত। সেটাই যেন প্রমাণ করে দিলেন অভিষেক। ৩টি মাত্র বাউন্ডারি এবং ৭টি ওভার বাউন্ডারি মারেন। স্ট্রাইকরেট ২৭৩-এরও বেশি!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *