পুকুর ভরাট করাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা পানাগড়ে

নিজস্ব প্রতিবেদন, কাঁকসা: পুকুর মাটি ফেলে ভরাট করাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল পানাগড় বাজারের রাইসমিল রোড সংলগ্ন এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে কাঁকসা থানার পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।
রবিবার সকালে পানাগড় বাজারের রাইসমিল রোডে বেআইনি ভাবে ট্রাক্টরে করে একটি পুকুরে মাটি ভরাটের কাজ করছিলেন ওই পুকুরের মালিক। স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে মাটি ভরাটের কাজ আটকাতে গেলে পুকুর মালিকের সঙ্গে স্থানীয়দের বচসা শুরু হয়ে যায়। এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হলে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে কাঁকসা থানার পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়। কাঁকসা থানার পুলিশ ট্রাক্টর সহ ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কাঁকসা গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান উজ্জ্বল মল্লিক।
উপপ্রধানের দাবি, ওই পুকুরের ৩ জন মালিক রয়েছেন। সকল মালিককে না জানিয়ে দুর্গাপ্রসাদ নামের ব্যক্তি বেআইনি ভাবে পুকুর ভরাটের কাজ করছিলেন। পুলিশ ৩ জনকে তুলে নিয়ে যায়। এর আগেও মাটি ভরাটের কাজ করার সময় স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য বারণ করতে গেলে তাঁর কথা শোনেননি ওই পুকুরের মালিক। কাঁকসা থানায় এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। প্রশাসন প্রশাসনের মতো কাজ করবে বলে জানিয়েছেন তিনি। যদিও দুর্গাপ্রসাদ নামের ওই ব্যক্তির দাবি, তিনি পুকুরের পাড়ে মাটি ফেলে তা সমান করছিলেন।
স্থানীয়দের অভিযোগ, রাইসমিল রোডের ওপর দু’টি পুকুর রয়েছে, একটি পুকুর আগেই প্রায় ভরাট করে দিয়েছে ওই পুকুরের মালিক। পাশের একটি পুকুরে ভরাটের কাজ চলছিল। স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে পুকুরে মাটি ভরাটের কাজ আটকে দেন। প্রশাসনের নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পুকুর মালিকরা প্রথমে পুকুরের পাড়ে মাটি ফেলে ভরাট করছেন, পরে সেই পুকুরের পাড় চড়া দামে বিক্রি করে সেখানে দোকান বাড়ি বানিয়ে রাতারাতি গোটা পুকুর ভরাট করে দিচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *