কড়া নজরদারিতেও ছটপুজোর অনুষ্ঠানে উঠল চুরির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদন, কাঁকসা: রেল পুলিশের কড়া নজরদারি থাকা সত্ত্বেও ছটপুজোর অনুষ্ঠানে চুরির অভিযোগ উঠল পানাগড় রেল স্টেশন সংলগ্ন রেল পুকুর ঘাটে। সোমবার সকালে চুরির ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় পানাগড়ে। ছটপুজো করতে এসে পুরুষ ও মহিলা মিলে সাতজনের সোনার চেন চুরি যাওয়ার অভিযোগ মিলেছে। তবে পুলিশের বিরুদ্ধে উঠেছে অসহযোগিতার অভিযোগ।
পানাগড়ের বাসিন্দা সুজিত পালের অভিযোগ, তিনি তাঁর পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে সোমবার সকালে পানাগড় স্টেশন সংলগ্ন রেল পুকুরে ছটপুজো করতে যান। সেখানে ঢোকার পর পুজো শেষে তিনি দেখতে পান তাঁর পরিবারের দুই মহিলার গলা থেকে সোনার চেন চুরি হয়ে গিয়েছে। তিনি গোটা পুকুর ঘাটের চারপাশে সোনার চেন খোঁজাখুঁজি শুরু করতেই একাধিক জনের সোনার চেন চুরি হওয়ার ঘটনা সামনে আসে। তাঁর অভিযোগ, এই বিষয়ে রেল পুকুরের ঘাটে মোতায়েন রেল পুলিশের কর্মীদের এবং ছটপুজো কমিটিকে জানালে তাঁদের পক্ষ থেকে কোনও রকম সহযোগিতা পাননি। উলটে শুধুমাত্র মাইকে প্রচার করে সকলকে সাবধান করা হয়।
গোটা এলাকা রেলের অধীনে থাকায় রবিবার থেকে ওই এলাকায় কড়া নজরদারিতে মোতায়েন ছিল রেল পুলিশের কর্মীরা। লাগানো হয়েছিল সিসিটিভি ক্যামেরা। কাঁকসা থানার পুলিশও পুকুর ঘাটে নজরদারি চালায়। কড়া নজরদারি থাকা সত্ত্বেও সোমবার সকালে কী ভাবে চুরির ঘটনা ঘটল, সেই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে। এই বিষয়ে যে সমস্ত মহিলার গলার হার চুরি হয়, তাঁরা সকলেই কাঁকসা থানার পুলিশের দারস্থ হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 − eleven =