সরকারের তৈরি আদর্শ গ্রামে পৌঁছায়নি বিদ্যুৎ পরিষেবা

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া:শুশুনিয়া পাহাড় জেলা পর্যটনের অন্যতম প্রাণকেন্দ্র। এই শুশুনিয়া পাহাড়ের পেছনেই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে লক্ষ টাকা ব্যয় করে ভরতপুরে পটশিল্পীদের জন্য তৈরি হয়েছিল আদর্শ গ্রাম। গত বছর অগস্ট মাসে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব¨্যােপাধ্যায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পটশিল্পীদের জন্য এই আদর্শ গ্রামের উদ্বোধন করেন। তবে উদ্বোধনের সাত মাস পেরলেও আজও নেই ন্যূনতম বিদ্যুৎ পরিষেবা।
পটশিল্পী ভাগবত চিত্রকরের দাবি, ‘উদ্বোধনের সময় থেকেই বাড়িগুলিতে বিদ্যুতের ওয়েরিং ও বাল্ব লাগানো থাকলেও, লাইন আসেনি। এখন আমরা সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত থাকি। সন্ধ্যার সময় আমরা আমাদের পুরাতন ভাঙা বাড়িতে ফিরে যায়।’ অন্যদিকে পটশিল্পী পরিবারের সদস্য কাজল চিত্রকর দাবি করেন, সোলার সাবমারসিবলে জল পাওয়া গেলেও মেঘলা দিনে জল পাওয়া যায় না। এর ফলে জলের জন্য সমস্যায় পড়তে হয়। এই বিষয়ে বাঁকুড়ার জেলাশাসক সিয়াদ এন বলেছেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে খুব তাড়াতাড়ি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উল্লেখ্য, পটশিল্পীরা যাতে সুন্দর পরিবেশে নিজেদের পটচিত্রকে তুলে ধরতে পারেন সেই জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব¨্যােপাধ্যায় শুশুনিয়ার পাশেই ভরতপুরে পটশিল্পীদের জন্য লক্ষ টাকা ব্যয় করে এক কক্ষ, রান্নাঘর ও শৌচালয় বিশিষ্ট ১৫টি টালির বাড়ি তৈরি করেন। বর্তমানে শুশুনিয়া পাহাড়ে ঘুরতে আসা পর্যটকরা এই গ্রামে আসেন। এতে পটশিল্পীদের কিছু শিল্পকর্ম বিক্রি হয়। তবে পটশিল্পীদের অভিযোগ, উদ্বোধনের পর থেকেই বাড়িগুলিতে টালির বিভিন্ন অংশ ভেঙে যাওয়ায় গত বর্ষায় তাঁদের সমস্যায় পড়তে হয়। এর ওপর বৈদ্যুতিক লাইন আজও আসেনি। তাই সামনের বর্ষায় কী পরিস্থিতি হবে তা নিয়ে চিন্তায় পটশিল্পীরা।
তবে আদর্শ গ্রামের বৈদ্যুতিক লাইন সংযোগ নিয়ে ছাতনা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি বঙ্কিম মিশ্র দায়ী করেছেন পটশিল্পীদেরই। শিল্পীরা বিনা পয়সায় বাড়িগুলি পেয়েছেন, তাই তাঁদের ব্যক্তিগত অনিহার কারণেই এই বৈদ্যুতিক সংযোগ হয়নি দাবি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির। পাশাপাশি সভাপতির দাবি, পটশিল্পীরা বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে নিজেরা কোনও আবেদন জমা করেননি। অন্যদিকে শিল্পীদের আদর্শ গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে বিজেপি কটাক্ষ করতে ছাড়েনি।
বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক স্বপন মুখোপাধ্যায়ের দাবি, আদর্শ গ্রামের কথা বলে ওই জায়গা থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা প্রচুর টাকা লুঠ করেছেন। আদর্শ গ্রামে নেই বিদ্যুৎ পরিষেবা এটা পঞ্চায়েত সমিতির গাফিলতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *