আধার বাতিলে কলেজে রেজিস্ট্রেশন না হওয়ায় পরীক্ষায় বসা নিয়ে সংশয়

নিজস্ব প্রতিবেদন, কাঁকসা: আধার কার্ড বাতিল হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন কাঁকসার ১১ মাইলের বাসিন্দা আশা বিশ্বাস। গত দু’দিন আগে তাঁর কাছে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে তাঁর আধার কার্ড বাতিলের চিঠি আসে।
আশা বিশ্বাস বীরভূমের ইলামবাজারের কবি জয়দেব মহাবিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের পড়ুয়া। আধার কার্ড বাতিল হওয়ায় তিনি পরীক্ষায় বসার জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারছেন না বলে অভিযোগ। হঠাৎ করে আধার কার্ড বাতিল হওয়ায় এবং কলেজে রেজিস্ট্রেশন না করতে পারায় তাঁর পরীক্ষায় বসা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। সোমবার তাঁর বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ভবানী ভট্টাচার্য। তিনি ওই ছাত্রীর পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।
কাঁকসা বনকাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তাবাস্সুম খাতুন জানিয়েছেন, এই বিষয়ে তাঁরা অভিযোগ পেয়েছেন। বনকাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ১১ মাইল এলাকায় ১১ জনের আধার কার্ড বাতিল হওয়ার খবর এসেছে। তবে ওই ছাত্রী যাতে পরীক্ষায় বসতে পারেন, তার জন্য কাঁকসার বিডিওর সঙ্গে কথা বলে প্রশাসনিক ভাবে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।
অপরদিকে কাঁকসা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ভবানী ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আগেই জানিয়েছিলেন কেন্দ্র সরকার চিরকাল রাজ্যের প্রতি বঞ্চনা করে আসছে। কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলিকে কাজে লাগিয়ে রাজ্যের শাসকদলের নেতা মন্ত্রীদের হ্যারাসমেন্ট করার পর এবার রাজ্যের মানুষকে সমস্যায় ফেলতে আধার কার্ড বাতিল করা শুরু করেছে, যাতে মানুষ ভোট দিতে যেতে না পারে।
তাঁর অভিযোগ, বিগত দিনে মতুয়া সম্প্রদায়ের একটা অংশ বিজেপিকে সমর্থন করার পর বর্তমানে যখন তারা বিজেপির বিরোধিতায় নেমেছে, ঠিক তখনই বেশিরভাগ ওই সম্প্রদায়ের মানুষদের বাড়িতে আধার কার্ড বাতিলের চিঠি পাঠাচ্ছে। এই আশঙ্কা আগে থেকেই করা হয়েছিল এবং সেই আশঙ্কা সত্যি হল। আশা বিশ্বাস নামের যে ছাত্রীর আধার কার্ড বাতিল হয়েছে, তাঁর আধার কার্ড বাতিল হওয়ার কারণে মোবাইলে ওটিপি না আসার কারণে ফর্ম ফিলাপ করা সম্ভব হয়ে উঠছে না। যার কারণে ভবিষ্যতে তিনি পরীক্ষায় বসতে পারবেন কিনা সেই নিয়ে গোটা পরিবার চিন্তায় পড়েছে। তার আশঙ্কা, কেন্দ্র সরকার আগামী দিনে আরও বেশি সংখ্যায় এই ধরনের হ্যারাসমেন্ট মানুষকে করতে থাকবে। তবে তার জন্য তৃণমূল কংগ্রেস প্রস্তুত রয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন আগে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন যে মানুষকে বিপদে ফেলতে ও মানুষ যাতে ভোট দিতে না পারে সেই কারণে তাদের আধার কার্ড বাতিল করা শুরু করেছে কেন্দ্র সরকার। মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সন্দেহ প্রকাশ করার পরই একের পর এক জেলা থেকে একাধিক জনের আধার কার্ড বাতিলের চিঠি পৌঁছয়। গত কয়েকদিন আগে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরে ৬০ জনের আধার কার্ড বাতিল হওয়ায় সেখানকার মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়। এরপরেই আধার কার্ড বাতিলের খবর আসে কাঁকসা ব্লকের ১১ মাইলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *