পুলিশের বাড়িতেই ডাকাতি, ভোজালির কোপ পড়শিকে

নিজস্ব প্রতিবেদন, পূর্ব বর্ধমান: বাঘের ঘরেই ঘোগের বাসা!
এক পুলিশকর্মীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল পূর্ব বর্ধমান জেলার আউশগ্রামে। শনিবার গভীর রাতে সশস্ত্র ডাকাতের একটি দল আউশগ্রামের ছোড়া কলোনির কারগিলপাড়ায় সুশান্ত বিশ্বাস নামের এক পুলিশকর্মীর বাড়িতে হানা দেয়। নগদ ৭০ হাজার টাকা এবং প্রায় তিন ভরি সোনার গয়না নিয়ে পালায় ডাকাত দল।
অভিযোগ, ডাকাতিতে বাধা দিতে গেলে সুশান্তবাবুকে মারধর করা হয়। সুশান্তবাবুর চিৎকার শুনে প্রতিবেশী এক যুবক বাইরে বেরিয়ে এলে তাঁকে ভোজালি দিয়ে কোপায় ডাকাত দল। আক্রান্ত ব্যক্তির নাম নরোত্তম বিশ্বাস। তিনি বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দুঃসাহসিক এই ডাকাতির ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
জানা গিয়েছে, ছোড়া কলোনির কারগিলপাড়ার বাসিন্দা পুলিশকর্মী সুশান্ত বিশ্বাস শনিবারেই ছুটিতে বাড়ি ফিরেছিলেন। বাড়িতে তাঁর স্ত্রী, এক মেয়ে এবং এক ছেলে রয়েছে। সুশান্তবাবুর দাবি, প্রায় রাত দুটো নাগাদ তিনি দরজায় ঠকঠক আওয়াজ শুনে বারান্দায় বেরিয়ে আসেন। কাঠের দরজা খুলে দেখেন, কোলাপসিবল গেটের তালা ভাঙা। তখনই মুখঢাকা প্রায় সাত-আটজন দুষ্কৃতী তাকে ঠেলে ঘরের ভিতরে ঢুকতে গেলে, তাদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে, সুশান্তবাবুকে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে একজন। তারপর তাঁর হাত-পা বেঁধে দেওয়া হয়।
জানা গিয়েছে, ঘটনার সময় আওয়াজ শুনতে পায় পাশের বাড়ির এক ছাত্রী বিচিত্রা বারুই (১৪)। রাতে সে ঘরে পড়াশোনা করছিল। সুশান্তবাবুর বাড়িতে কিছু হয়েছে ভেবে ঘর থেকে একাই বেড়িয়ে দেখতে ঢোকে সুশান্তবাবুর বাড়িতে। সুশান্তবাবুদের বাড়িতে ঢুকতেই বিচিত্রাকেও দুষ্কৃতীরা আটকে রেখে দেয় সুশান্তবাবুদের বাড়িতে। সুশান্তবাবুর স্ত্রী জয়ন্তীদেবীর দাবি, দুষ্কৃতীদের সবার হাতেই অস্ত্রশস্ত্র ছিল। তারা ঘরে ঢুকে লুঠপাঠ চালাতে থাকে। সুশান্তবাবুদের বাড়িতে যখন লুঠপাঠ হচ্ছিল, তখন তাঁদের চিৎকার শুনে ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন প্রতিবেশী যুবক নরোত্তম বিশ্বাস। দুষ্কৃতীরা তাঁকে সামনে পেয়ে ঘিরে ধরে ভোজালি দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপ মারে। চিৎকার শুনে আরও লোকজন জড়ো হতেই পরিস্থিতি বেগতিক দেখে দুষ্কৃতীরা মাঠ দিয়ে পালিয়ে যায়।
রবিবার ডাকাতির ঘটনার তদন্তে আউশগ্রামে আসেন জেলা পুলিশ সুপার আমনদীপ। তিনি পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন। পাশাপাশি গোটা এলাকা ঘুরে দেখেন। পাশাপাশি আসেন পূর্ব বর্ধমান জেলার ডিএসপি (ডিএনটি) বীরেন্দ্র কুমার পাঠক। প্রসঙ্গত,গত দু’সপ্তাহ আগে আউশগ্রাম থানার কাছেই একটি বাড়িতে দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনা ঘটেছিল। সেই সময় কয়েক লক্ষ টাকার গয়না, নগদ এবং লক্ষাধিক টাকার বিদেশি মুদ্রা লুঠ করে পালায় দুষ্কৃতীরা। ফের ডাকাতির ঘটনা ঘটায় আতঙ্কিত এলাকার মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *