হাসপাতালের বাইরে ভবঘুরের দেহ, কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: হাসপাতালের বাইরে ভবঘুরের দেহ পড়ে থাকার দাবি। বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ
বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের গেটের বাইরে এক ভবঘুরের মৃতদেহ নিয়ে শোরগোল। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, অসুস্থ অবস্থায় শুয়ে ছিলেন এক ভবঘুরে ব্যক্তি। ভোরের দিকেও জীবিত ছিলেন ওই ব্যক্তি। সকালে তাঁর মৃত্যু হয়। অথচ উদাসীন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, হাসপাতালে এত কর্মী থাকা সত্ত্বেও কেন ভবঘুরে অসুস্থ ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ঢুকিয়ে চিকিৎসা করা হল না, উঠছে প্রশ্ন? সময় মতো তাঁকে চিকিৎসা করলে হয়তো তাঁর প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়া যেত বলেও দাবি।
স্থানীয়দের দাবি, একদিন রাতভর ঠান্ডা তাঁর ওপর অসুস্থতা, যার ফলে হাসপাতালের গেটের বাইরেই মৃত্যু হল ওই ব্যক্তির। ঠাকুর নামেই পরিচিত ছিলেন ওই ব্যক্তি। কোন এক অজানা জায়গা থেকে এসে হাসপাতাল চত্বরেই দীর্ঘদিন ধরে তিনি বসবাস করছিলেন। এদিন তাঁর মৃতদেহর পাশ দিয়ে হেঁটে পেরিয়ে গেলেও, হাসপাতালের মর্গে আনার মতো কেউ নেই। সাত সকালেই এই অমানবিক চিত্র ফুটে এল বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *