নজরে দিল্লির কুরসি, দলের সর্বাধিনায়ক নীতীশই

বছর শেষে বড় নাটক। বিহারে রাজনীতিতে আবারও বড় মোড়। নিজের ভিত আরও শক্ত করলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। শাসক দল জনতা দল (ইউনাইটেড)-র বৈঠকে তাঁকে দলের সভাপতি বলে ঘোষণা করা হল। জানা গিয়েছে, শুক্রবার দুপুরে দিল্লিতে ন্যাশনাল এগজেকিউটিভ বৈঠকে সর্বসম্মতিতে নীতীশ কুমারকেই দলের প্রেসিডেন্ট হিসাবে নির্বাচন করা হয়। এতদিন দলের জাতীয় সভাপতি ছিলেন লালন সিং। শুক্রবার তিনি ইস্তফা দেওয়ার কয়েক মিনিট পরই নীতীশ কুমারকে দলের সভাপতি হিসাবে নির্বাচন করা হয়।

শুক্রবার দিল্লিতে জেডিইউয়ের জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে নিজেই সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছাপ্রকাশ করেন লালন সিং। নীতীশের নির্দেশেই এই সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তারপরই দলের বিভিন্ন রাজ্যের প্রতিনিধিরা ফের সভাপতি পদে নীতীশের নাম প্রস্তাব করেন। এবং তিনিই সর্বভারতীয় সভাপতি পদে নির্বাচিত হন।

যদিও নিন্দুকেরা বলেন সবটাই পূর্বপরিকল্পিত। আসলে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর নজর এই মুহূর্তে দিল্লির কুরসিতে। সেকারণে দলের অন্দরে কোনওরকম বাধা বিপত্তি রাখতে চান না তিনি। রাজধানীতে সেই ইঙ্গিতও মিলেছে এদিন।

সামনেই লোকসভা নির্বাচন। তার আগে দলের রাশ পুরোপুরি নিজের হাতে রাখতে চাইছিলেন নীতীশ কুমার । তাছাড়া দলের সর্বভারতীয় সভাপতি পদে যিনি ছিলেন সেই লালন সিং আবার অতিরিক্ত লালুপ্রসাদ যাদব প্রীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠছে। তাতে লোকসভার আগে আসনরফা বা আসন বিন্যাসের ক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে বলে দলের অন্দরে প্রশ্ন উঠছিল। সম্ভবত সেকারণেই সরিয়ে দেওয়া হল লালনকে। দলের সর্বভারতীয় সভাপতি পদে ফের বসলেন নীতীশ কুমার। একই সঙ্গে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর কুরসিও সামলাবেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *