গাজায় ত্রাণের প্যাকেট মাথায় পড়ে মৃত কমপক্ষে ৫, জখম ১০

একাধারে যুদ্ধের গর্জন, অন্যদিকে খিদের জ্বালা। একমুঠো খাবার ও পানীয় জলের জন্য হাহাকার করছে গাজার লক্ষ লক্ষ মানুষ। আর এই ত্রাণের নীচেই চাপা পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে অন্তত পাঁচ জনের। প্যালেস্তিনীয় ভূখণ্ডে আকাশপথে ত্রাণ সামগ্রী পাঠাচ্ছে আমেরিকা-সহ বিশ্বের বহু দেশ। এমনই এক ত্রাণ অভিযানের সময় এই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন গাজার অন্তত ৫ বাসিন্দা। আহত কমপক্ষে ১০।

উল্লেখ্য, অবরুদ্ধ গাজায় ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া সহজ নয়। ইজরায়েলি সেনা সড়কপথ বন্ধ করে রেখেছে। সাগরেও টহল দিচ্ছে ইজরায়েলের রণতরী। মিশর ও গাজার মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র পথ রাফা বর্ডার ক্রসিং দিয়েও ত্রাণ পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। তাই আকাশপথে ত্রাণ বিলি ছাড়া অন্য পথ নেই। কিন্তু তা পর্যাপ্ত নয় বলে বারবার বলছে রাষ্ট্রসংঘ।

সংবাদ সংস্থা এএফপি সূত্রে খবর, শুক্রবার উত্তর গাজায় আকাশপথে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার কাজ চলছিল। বিমান থেকে প্যারাশুটে করে ঘন বসতিপূর্ণ এলাকায় ফেলা হচ্ছিল একের পর এক খাবারের প্যাকেট। তখনই ঘটে যায় বিপর্যয়। প্যারাশুট না খোলায় একটি বড় মাপের খাবারের প্যাকেট রকেটের গতিতে আছড়ে পড়ে আল শাতি শরণার্থী শিবিরের একটি বাড়িতে। এই ঘটনায় প্রাণ হারান অন্তত পাঁচজন। আহত হন কমপক্ষে ১০। তাঁদের গাজা সিটির আস শিফা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মহম্মদ আল-ঘাউল নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী এএফপিকে বলেন, ‘বিমান থেকে খাবারের প্যাকেট ফেলা হচ্ছিল। তা দেখে আমি আর আমার ভাই একটু আটা পাওয়ার আশার সেদিকে যাচ্ছিলাম। তখনই দেখলাম একটি প্যাকেটের প্যারাশুট খোলেনি আর রকেটের গতিতে সেটি আছড়ে পড়ে একটি বাড়ির ছাদে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + 7 =