মন খারাপ? তাহলে হাঁটতে শুরু করুন

হাঁটাহাঁটি করলে শরীর ভাল থাকে, আমরা সকলেই জানি। কিন্তু হাঁটলে আপনার খারাপ মন ভাল হয়ে যেতে পারে, সেটা জানেন কি? মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, মনোবিদরা কিন্তু তেমনটাই বলছেন।

দুশ্চিন্তা, মন খারাপ, ভাবনা যদি খানিক হাঁটাহাটিতে কমে, তাহলে সেটা করাই ভাল বলছেন মনোবিদরা।বাইরের খোলা হাওয়া, হাঁটা, পাঁচ জনের সঙ্গে দেখা হওয়া মনের গুমোট ভাবটাকে কিন্তু বের করে দিতে পারে।

হাঁটলে লাভ-

হার্ট ভাল থাকে

ঘুম ভাল হয়

ওজন কমাতে সহায়ক

শরীর ঝরঝরে থাকে এগুলো তো সকলেই জানেন।

এর পাশাপাশি হাঁটাহাঁটি করলে ভাল থাকে মানসিক স্বাস্থ্যও।স্ট্রেস কমাতে, ক্লান্তি দূর করে মনকে তরতাজা করতেও হাঁটার ভূমিকা রয়েছে।

 হাঁটা ও মানসিক স্বাস্থ্য-

হাঁটলে মস্তিষ্কেও রক্ত চলাচল ও রক্ত সঞ্চালন ভালভাবে হয়।যার ইতিবাচক প্রভাব পড়ে হাইপোথ্যালামিক পিট্যুইটারি অ্যাড্রিনাল অ্যাক্সিস-এ।যা স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে। হাঁটলে যে এক্সারসাইজ হয়, এতে মন ধীরে ধীরে শান্ত হয়ে যায়।উদ্বেগ, খারাপ চিন্তাগুলো একটু একটু করে কমতে থাকে। পাশাপাশি হাঁটতে বের হলে, আর পাঁচ জনের সঙ্গে আপনার দেখা হবে। কথা হবে। সেটাও মন ভাল করতে সাহায্য করে।

কীভাবে কতক্ষণ হাঁটবেন?

মন খারাপ লাগলে একাই হাঁটতে বেরিয়ে পড়ুন। যেখানে যেতে ইচ্ছে করে চলে যান। যদি কোনও পার্ক থাকে, কাছাকাছি নদীর ধার বা কোনও ফাঁকা জায়গা যেখানে যেতে ইচ্ছে করছে চলে যান। প্রতিদিন অন্তত ১০ মিনিট হাঁটলে শরীর ও মন ভাল থাকবে।

হাঁটাটাকে রুটিনে পরিণত করুন। নিজের সুবিধেমতো সময় হাঁটতে বের হন। ১০ মিনিট দিয়ে শুরু করে প্রয়োজনমতো সময় বাড়ান। আধ ঘণ্টা হাঁটতে হলে, মাঝে ব্রেক নিন। মোবাইলে পছন্দমতো গান শুনতে পারেন।

মোটামুটি ৪০ মিনিট পর্যন্ত দিনে হাঁটতে পারেন। খুব আস্তে বা খুব জোরে না হেঁটে মাঝামাঝি গতিতে হাঁটুন।একা হাঁটতে একঘেয়ে লাগলে বন্ধু, প্রতিবেশীকে আসার জন্য বলতে পারেন।

সাবধানে হাঁটুন সঠিক জুতো পরে-

হাঁটতে যখন যাচ্ছেন শরীর ও মন ভাল রাখতে তখন অবশ্যই জুতো ও পোশাকে নজর দিন। হিলতোলা শক্তজুতো নয়। যে জুতো পরে আপনি সহজেই হাঁটতে পারেন, দীর্ঘক্ষণ হাঁটলেও পায়ে ব্যথা হয় না। সেটাই বেছে নিন। গরমের জায়গায় থাকলে, ঢিলেঢালা সুতির পোশাক পরুন। যে পোশাকই পরবেন দেখবেন তা যেন খুব টাইট না হয়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × two =