চিরঘুমে অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়

কলকাতা: লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন। অভিনয় ছিল তাঁর প্রাণ। অভিনয় করতে করতেই চিরঘুমের দেশে পাড়ি দিলেন টলিউড অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার ভোরেই আসে মর্মান্তিক খবর। ৫৭ বছরেই প্রয়াত হন অভিনেতা। তাঁর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ সাংস্কৃতিক মহল। জানা গিয়েছে, শুটিং চলাকালীন মঙ্গলবার অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। খাদ্যে বিষক্রিয়ার জেরে অসুস্থ বোধ করায় তাঁকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়। বুধবার একটি চ্যানেলের রিয়্যালিটি শো-এর শুটিং করছিলেন তিনি। আচমকা তাঁর প্রেসার নেমে যায়। তারপর তাঁকে বাড়ি দিয়ে আসা হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে তাঁর মৃত্যুর খবর আসে। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা গিয়েছেন বলে চিকিত্সকরা মনে করছেন।

জানা গিয়েছে, বর্তমানে বাড়িতেই রয়েছে অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের দেহ। তাঁর বাড়িতে রয়েছেন একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রী। আজই সম্ভবত শেষকৃত্য হবে অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের। সহকর্মীর প্রয়াণ কথা বলার ভাষা খুঁজে পাচ্ছেন না অভিনেতা প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়।অভিষেকের মৃত্যুতে শোকগ্রস্ত টলিউড, সিরিয়াল জগতের সমস্ত কলাকুশলীরাই।

১৯৬৪ সালের ৩ এপ্রিল জন্ম অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের। তাঁর প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি পথভোলা।তরুণ মজুমদার পরিচালিত এই ছবিটি ছিল বিগ হিট। একটা সময়ে নিয়মিত কাজ করেছেন অভিষেক। তাঁর উল্লেখ্যযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে আছে, ‘অমর প্রেম’, ‘ওরা চারজন’, ‘হারাণের নাতজামাই’, ‘পাপী’, ‘তুফান’-এর মতো সিনেমা। রয়েছে মায়ার বাঁধন, মায়ের আঁচল, গীত সংগীত, সুজন সখী। অল্প সময়ে  দর্শকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়ও হয়ে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু মাঝে কাজ থেকে দীর্ঘ বিরতি নেন। সম্প্রতি ফের ধারাবাহিকে কাজ শুরু করেছিলেন। ফিরে এসেই নতুন করে মন কেড়েছিলেন দর্শকদের। খড়কুটো সিরিয়ালে ‘গুনগুন’-এর বাবার চরিত্রে অভিনয় করছিলেন তিনি। তার মধ্যেই আচমকা দুঃসংবাদ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 10 =