মাধ্যমিকের প্রথম দিনই দুর্ঘটনা, মৃত পরীক্ষার্থীর দাদা, আহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদন, পূর্ব বর্ধমান: মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রথম দিনই পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল এক পরীক্ষার্থীর দাদার। অন্যদিকে গুরুতর আহত পরীক্ষার্থীর এক দিদি। দুর্ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার সকালে পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারে বলগোনা গুসকরা রাস্তায় ভাতার থানার মাহাতা গ্রামের কাছে। মৃতের নাম অরিজিৎ ঘোষ (২১)। তাঁর বাড়ি ভাতারের বেরোয়া গ্রামে। দুর্ঘটনায় জখম রিক্তা ঘো¡কে (১৮) উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। তবে পরীক্ষার্থীকে এই দুর্ঘটনার বিষয়ে কিছু না জানিয়ে তাকে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হয়।
জানা গিয়েছে, বেরোয়া গ্রামের বাসিন্দা রিক্তা ঘোষের বোন স্মৃতি ঘোষ এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। অরিজিৎ ঘোষ রিক্তা ও স্মৃতির খুড়তুতো দাদা। এরুয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা কেন্দ্র পড়েছে স্মৃতির। এদিন পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে একটি মারুতি ভ্যানে চড়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাচ্ছিল স্মৃতি। মারুতির পিছনেই খুড়তুতো দাদার মোটর সাইকেলে চড়ে যাচ্ছিলেন রিক্তা। মাঝ রাস্তায় বিপরীত দিক থেকে আসা এলপিজি গ্যাস ভর্তি একটি লরি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটর সাইকেলের সামনে ধাক্কা মারলে, অরিজিৎ ছিটকে লরির নীচে পড়ে যায়। লরির চাকায় পিষে যায় তাঁর মাথা। দুর্ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। গুরুতর যখন হন রিক্তা। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। পুলিশ ঘাতক লরিটিকে আটক করেছে। যদিও লরির চালক ও খালাসি ঘটনার পর পালিয়ে যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *