৮৮ মিটার ছয়! রিঙ্কুর শট দেখে লাফিয়ে উঠলেন সূর্য

রিঙ্কু সিং বাইশ গজে পা রাখলেই দর্শকদের উত্তেজনার পারদ বাড়ছে। অল্প সময়ের মধ্যেই রিঙ্কু সিং সেই জায়গাটা তৈরি করে নিয়েছেন। তা ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগই হোক বা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। আইপিএলে কেকেআরের প্রহরী দেশের জার্সিতেও ফুল ফোটাচ্ছেন। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে এই নিয়ে চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলছেন আলিগড়ের ছেলে। প্রথম ও দ্বিতীয় ম্যাচে রিঙ্কু দলের জয়ে অবদান রেখেছিলেন। তৃতীয় ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পাননি। চতুর্থ ম্যাচে রায়পুরে সুযোগ পেয়েছেন রিঙ্কু।

এ বার আর ম্যাচের শেষের দিকে নয়, রিঙ্কু সিং মাঠে এলেন নবম ওভারে। আর তিনি আসতেই একের পর এক নয়নাভিরাম শট। তাঁর ব্যাটে এমনই এক শট দেখে বিস্মিত হয়ে গেলেন অধিনায়ক সূর্যকুমার যাদবও। দশ ওভারের আগে রিঙ্কু সিংকে মাঠে দেখা যাবে, তেমনটা হয়তো অনেকেই কল্পনা করেননি। টিম ইন্ডিয়ার তরুণ তুর্কি রিঙ্কু সিং প্রথম দু-ম্যাচে হাতে গোনা কয়েকটি ডেলিভারি খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। আর অজিদের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে তো ব্যাটিংই পাননি। অবশ্য রায়পুরে নবম ওভারেই নামতে হল রিঙ্কু সিংকে। তারপর থেকেই যাবতীয় লাইমলাইট কেড়ে নেন রিঙ্কু।

১২তম ওভারের তৃতীয় বলে সুইচ হিটে ৮৮মিটার ছয় মারেন রিঙ্কু। যা দেখে হা হয়ে যান ক্যাপ্টেন সূর্যকুমার যাদবও। রিঙ্কুর এই অনবদ্য ছয় দেখে বিস্ময় নিয়ে হাততালি দিতে থাকেন ডাগআউটে থাকা সতীর্থরা। যে ছন্দে রায়পুরে ব্যাটিং করছিলেন রিঙ্কু, তাতে অবশ্য আন্তর্জাতিক টি-২০-তে প্রথম হাফসেঞ্চুরি প্রায় নিশ্চিত ছিল। কিন্তু বাঁ হাতি পেসার বেহরেনডর্ফের ইয়র্কার তাঁর পায়ে লাগতেই আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। রিভিউতে পরিষ্কার দেখা যায় বল লেগ স্টাম্পে সামান্য ছুঁয়ে যেতে পারত। কিন্তু অন ফিল্ড আম্পায়ার আউট দেওয়ায় হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় রিঙ্কুকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *