বর্ধমানে ২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদন, পূর্ব বর্ধমান: আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা না হলেও ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। সমস্ত রাজনৈতিক দলই নিজের মতো করে প্রচার ও দেওয়ালে প্রতীক চিহ্ন আঁকতে শুরু করে দিয়েছে নিজের এলাকায়। অন্যদিকে নির্বাচন কমিশনের তরফেও তৎপরতা তুঙ্গে। রাজ্যের পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে কমিশনের টিম পশ্চিমবঙ্গে আসার আগেই বাংলায় এসে পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।
মূলত বর্ধমান, কাটোয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় শুক্রবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় বাহিনী এসে পৌঁছয়। বাহিনী এসেই নির্দিষ্ট থানায় রিপোর্ট করে। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পরবর্তী ক্ষেত্রে রুট মার্চ করা শুরু করবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। এদিন পূর্ব বর্ধমান জেলায় এসে পৌঁছয় দু’ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী।
তারমধ্যে এক কোম্পানি কাটোয়া-কালনার জন্য, আর এক কোম্পানি বর্ধমান সদরের জন্য। শুক্রবার সন্ধ্যায় বর্ধমান শহরের গোলাপবাগ ইন্টার ন্যাশনাল গেস্ট হাউসে এসে পৌঁছয় বাহিনী। এই বাহিনীর মধ্যে একজন অ্যাসিস্ট্যান্ট কম্যান্ডেন্ট, দু’জন অফিসার সহ ৯০ জন সেনা জওয়ান রয়েছেন। সূত্রের খবর, রাজ্যের প্রতি জেলায় অন্তত ৫ কোম্পানি করে বাহিনী রাখতে চাইছে কমিশন। তবে কিছু জেলায় কমসংখ্যক কোম্পানি থাকতে পারে। এই কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে জেলার পুলিশ সুপারের অধীনে।
ভোটের আগে ভোটারদের আত্মবিশ্বাস ও ভয় দূর করতেই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে বলে কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − seven =